পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/৪৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“অন্ধকূপ-হত্যা”-রহস্য জুলাই তারিখে সাইস্ এর নিকট যে পত্র লিখেন তাহাতেও এই গুলি চালাইবার উল্লেখ আছে। (২৭) কিন্তু হলওয়েল ২৮ শে ফেব্রুয়ারী তারিখে (১৭৫৭) তাহার বন্ধু ডেভিসের নিকট যে পত্র লিখেন তাহাতে | তিনি বলেন যে সেই কারাগৃহে মাত্র একটি ভিতরমুখী দরজা ছিল, তাহাও { বাহির হইতে) বন্ধ ছিল। অনেক চেষ্টা করিয়াও তাহার। দরজা খুলিতে পারে নাই। ইহাতে প্রমাণ হয় যে হলওয়েল ও গ্র্যান্ট বর্ণিত গুলি চালান উক্তিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। ১৪। গভর্ণর ড্রেক লিখিত অন্ধকূপের উপাখ্যান। ১৯শে জুলাই, ১৭৫৬। | ১৭৫২ খৃষ্টাব্দ হইতে ১৭৫৮ খৃষ্টাব্দ পর্যন্ত ড্রেক সাহেব বঙ্গদেশের ইংরাজ কুঠী সমূহের গভর্ণর নিযুক্ত ছিলেন। নবাব কর্তৃক কলিকাতা অবরােধকালে ১৯শে জুলাই তারিখে অনুমান বেলা ১০১১টার সময় তিনি দুর্গ ত্যাগ করিয়া নৌকা যােগে পলায়ন করেন এবং ফলতায় জাহাজে বসিয়া তিনি নবাব সিরাজউদ্দৌল্লার সিংহাসন আরােহণ কাল হইতে কলিকাতা অবরােধ ও অধিকার কাল পর্যন্ত একটি বিস্তৃত উপাখ্যান লিখিয়া যান। এই উপাখ্যান পাঠে দেখা যায়, তিনি তাহার সকল কাৰ্যই সমর্থন করিতে চেষ্টা করিয়াছেন। তাঁহার বর্ণনা অনুসারে তৎকালে ৫১৫ জন যুদ্ধোপযােগী সৈন্য ছিল, (২৮) কিন্তু অন্য কাগজ-- পত্রের দ্বারা প্রমাণ হয় যে তাহার এই উক্তি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তাহার বিবরণে যে অনেক মিথ্যা কথা স্থান পাইয়াছে, তাহা তাহার পাঠক মাত্রেই জানিতে পারিবেন। কিন্তু নিস্পয়ােজ, ভাবিয়া এ-স্থলে সে-সব উল্লেখ করা গেল না। অন্ধকূপ সম্বন্ধে তিনি বলেন “.••••••••(নবাবের t (২৭} {{}}} Vol, 1 pp 61-62 (২৮) Hঃll vt. 1. P, 13}