পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় পরিচ্ছেদ নিকট দুর্গ সমর্পণের পর) কতকগুলি সৈন্য মদ্যপান করিয়া গণ্ডগােল আরম্ভ করিয়াছিল। ইহাতে নবাব কোন উচ্চ নীচ ভেদাভেদ জ্ঞান না করিয়া হলওয়েল সাহেব হইতে সাধারণ সৈন্যকে পর্যন্ত অন্ধকূপে আবদ্ধ করিয়া রাখেন ; এই কক্ষটী আয়তনে অতি ক্ষুদ্র ছিল এবং ইহার মধ্যে হাওয়া ছিল না বললেই চলে। এইরূপ একটি ক্ষুদ্র কক্ষে ২০০ শত জন লােক এমনই ভাবে আবদ্ধ হয় যে, একজন অন্যকে পায়ের নীচে চাপিয়া মারে এবং রাত্রি ৯টা হইতে পর দিবস ২১শে তারিখের প্রভাত ৮টা। পর্যন্ত বন্ধ থাকার পর দুয়ার খুলিয়া দেখা গেল মাত্র ১৫ জন লােক জীবিত আছে। (২৯) ১৫। উইলিয়াম লিসে লিখিত পত্র মাদ্রাজস্থিত রবার্ট ওৰ্ম্মের নিকট প্রেরিত। ফলতা, জুলাই মাস, ১৭৫৬। দুর্গ অবরােধ কালে লিওসে দুর্গের মধ্যেই ছিলেন, কিন্তু নবাবের সৈন্যের সহিত যুদ্ধকালে তাহার একখানি পা ভাঙ্গিয়া যায়। সেই জন্যই তিনি ড্রেক সাহেবের সহিত দুর্গ ত্যাগ করিয়া নৌকা যােগে পলায়ন করেন। ফলতায় অবস্থান কালে তিনি ওৰ্ম্মেকে যে পত্রখানি লিখিয়া ছিলেন, তাহাতেই অন্ধকূপের উপাখ্যানটি লিখিয়া যান। তাহার বর্ণনার অনেকাংশেই সত্য ঘটনার আভাস পাওয়া যায় কিন্তু এই উপাখ্যান লিখিবার সময় যখনই তিনি অপরের সাহায্য গ্রহণ করিয়াছেন, তখনই ভুল করিয়াছেন। দুর্গ ত্যাগের জন্য দুর্গ মধ্যে যে একটী সভার অধিবেশন হয়, সে সম্বন্ধে তিনি বলেন, “অনতিবিলম্বে দুর্গ ত্যাগের জন্য হলওয়েল সাহেব প্রস্তাব উত্থাপন করেন, কিন্তু নিম্নলিখিত কারণের জন্য অন্যান্য সকলেই তঁাহার সহিত একমত হইতে পারিলেন না। প্রথমতঃ দিবালােকের (২৯) lifil vol, 1P, ii8-162