প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अन्नब्राछिङ SK i কত ম্যাজিকের কথা লেখা ছিল !-নিশিচন্দপর থেকে আসবার সময় কোথায় যে, গেল বইখানা ! চারিধারে বাজনার শব্দ, লোকজনের হাসি-খাঁশি, খেলেন্না সিগারেটের ধোঁয়া, ভিড়, আলো, সাজানো দোকানোর সারি, তাহার মান উৎসবের নেশায় মাতিয়া 就河以 একদল ছেলেমেয়ে একখানা গোেরর গাড়ির ছাঁইয়ের ভিতর হইতে কৌতুহল ও আগ্রহে মািখ বাড়াইয়া” ম্যাজিকের তাঁবার জীবন্ত বিজ্ঞাপন দেখিতে দেখিতে যাইতেছে । সকল লোককেই সিগারেট খাইতে দেখিয়া তাহার ইচ্ছা হইল সেও খায়একটা পানের দোকানে ক্লেতার ভিড়ের পিছনে খানিকটা দাঁড়াইয়া অবশেষে একটা কাঠের বাক্সের উপর উঠিয়া একজনের কাঁধের উপর দিয়া হাতটা বাড়াইয়া দিয়া বলিল, এক পয়সার দাও তো ? এই যে এইদিকে-এক পয়সার সিগারেট-ভাল, দেখে দিও-ফা ভালো । একটা গাছের তলায় বইয়ের দোকান দেখিয়া সেখানে গিয়া দাঁড়াইল । চটের থলের উপর বই বিছানো, দোকানী খাব বাড়া, চোখে সন্তা-বাঁধা চশমা ! একখানা ছবিওয়ালা চটি আরব্য উপন্যাস অপাের পছন্দ হইল-সে পড়ে নাই-কিন্তু দোকানী দাম বলিল আট আনা ! হাতে পয়সা থাকিলে সে কিনিত । বইখানা আর একবার দেখিতে গিয়া হঠাৎ সম্মখের দিকে চোখ পড়াতে সে. অবাক হইয়া গেল । সম্মখের একটা দোকানের সামনে দাঁড়াইয়া আছে- পট ! তার নিশ্চিন্দিপরের বাল্যসঙ্গী পট! অপাের তাড়াতাড়ি আগাইয়া গিয়া গায়ে হাত দিতেই পটু মািখ ফিরাইয়া তাহার দিকে চাহিলা-প্রথমটা যেন চিনিতে পারিল না-পরে প্রায় চিৎকার করিয়া বলিয়া উঠিল, অপদো :- এখানে কি করে, কোথা থেকে অপাদা ?-- অপ বলিল, তুই কোথা থেকে ? -আমার তো দিদির বিয়ে হয়েচে এই লাউখালি । এইখেন থেকে দী-কোশ । তাই মেলা দেখতে এলাম - তুই কি ক’রে এলি কাশী থেকে ?-- অপ, সব বলিল । বাবার মাতু, বড়লোেকর বাড়ি, মনসাপোতা স্কুল । জিজ্ঞাসা করিল, বিনিদির বিয়ে হয়েছে মামজোয়ানের কাছে ? বেশ তো অপর মনে পড়িল, অনেকদিন আগে দিদিৰ ষড়ইভাতিতে বিনিদির ভয়ে ভয়ে আসিয়া যোগ দেওয়া । * গরীব অগ্ৰদানী বাম “য়ে, সমাজে নিচু স্থান, নাম ও ভীর, চোখ দটি সর্বদাই নামানো, অ’লে পাই . . . . Y দ’জনেই-খব খশী হইয়াছিল ।. অপৰ শল্য- তার মধ্যে বড় ভিড় ভাই, চল কোথাও একটু ফাঁকা জায়গাতে গিয়ে বাস- অ -থা আছে তোর সঙ্গে । বাহিরের একটা গাছতলায় দ’জনে গিয়া বসি "আমাদের বাড়িটা কিভাবে আছে ? --রাণাদি । কেমন ?” “নেড়া, পটল, নী, ১ ইহারা ?- ইছামতী নদীটিা ? পটু সব কথায় উত্তর দিতে পারিল না , আজ অনেকদিন গ্রামছাড়া। ‘পটুর আপন মা নাই, সৎমা। অপর পাশ । ডুিয়া চলিয়া ধাওয়ার পর হইতে সে সঙ্গীহীন হইয়া পড়িয়ছিল, দিদির বিবাহের ; রে বাড়িতে একেবারেই