পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/২১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


& > 職 অমরনাথ । আপনাদের হৃৎপ্রত্যয় হোচ্ছে না যে আমি কুলমৰ্য্যাদা এবং জাতিমাহাত্ম্য পরিত্যাগ কোরে এই কার্য্যে সম্মত হব। রাধ। অারে ঠাকুর তুমি যে যথার্থই খেপে উঠেচ দেখি ? 驾 গোবিন্দ । এই দেখ । এ কথা তো অামি পুৰ্ব্বেই জানি তোমাদের বিশ্বাস হবে না । আচ্ছ। তবে তোমাদের যাতে বিশ্বাস হয়, তা কোচ্ছি। ( গলদেশ হইতে যজ্ঞোপবীত খুলিয় ) এই লও, এই লও, এই লও। (খণ্ড খণ্ড করিয়া নেপথ্যের দ্বারে নিক্ষেপ) এই পৰ্য্যন্ত গোবিন্দচন্দ্র ব্রাহ্মণ ঘুচে ব্রাহ্ম হলেন । আর তো কোন সংশয় নেই ? জগদারাধ্য কামদেব পণ্ডিতের সস্তান এসে যে ব্রাহ্ম হল, এতে যে আপনাদিগের কত বড় শ্লাঘার বিষয় তা বুঝতিই পাচ্ছেন। আবার অমরনাথ বাবুব যেমন কন্যা তাব উপযুক্ত পাত্র হল। দুই পক্ষেই চুড়ান্ত। যেমন কালীঘাটের প্রসাদীয় পাঠ, ধৰ্ম্ম পক্ষেও চুড়ান্ত, আবার খাদ্যের পক্ষেও চুড়ান্ত। তবে এক্ষণে আপনার আর বিলম্ব কোববেন না, কারণ আমার মন ফিরে যাবাবও কিছু বিচিত্র নেই। আরও একুটা কথা আপনাদের কাছে প্রকাশ কোরেই তবে বোলতে হল । সেই ষে পাত্রী চারুকমল, তিনি যৎপরোনাস্তি ব্যাকুলা হয়ে আমার নিকট তিন চারবার লোক পাঠায়েছেন । তারা সকলেই এসে আমাকে সংবাদ কোরেচে যে চারুকমল দুখানি হাত যোড় কোরে অশ্রুপুর্ণ নয়নে বোলেচেন যে তিনি আর বিলম্ব না করেন। সেই জন্যে আমারও এত ব্যস্ত হওয়া । রাধা । কে বোলেচে তোমার সঙ্গে এ কথা তা তোমায় বোলতে হবে । না বোললে তোমাকে এখান থেকে যেতে দিব না । কোন বেটাব। যে পাগল ক্ষেপিয়ে তামাস দ্যাখে, আমি একবার তাই জানতে চাই। গোবিন্দ । ন ন ন । সেটা হয় না । তারা আমাকে গঙ্গাজল স্পর্শ কোরে দিবি কোরিয়ে নিয়েচে । অtর তাও যা হোকু, তার অাবীব এ