পাতা:অশনি সংকেত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


R अभन-नकळ --যেদিন মতি মাচিনী এল ভাতছালা থেকে ? 一る。 1 অনঙ্গ-বোয়ের চোখ ছলছল করে এল । সে আর কিছ না বলে কােপালী-বোয়ের ডান হাতখানা নিজের হাতের মধ্যে টেনে নিলে । দািগ পণ্ডিত এসে আড় হয়ে শয়ে পড়েছিল ওদের দাওয়ায় । বাড়ীতে কেউ ছিল না, গঙ্গাচরণ পাঠশালায়, ছেলেরা কোথায় বেরিয়েছিল। অনঙ্গ-বৌ শাক তুলে বাড়ী ফিরে এসে দেখে প্রমাদ গনলো । আজই দিন বঝে ! শািন্ধ এই শাক ভরসা, দটো কটা মোটা নাগরা চাল কোথা থেকে উনি ওবেলা এনেছিলেন, ৩া৩ে একজনেরও পেট ভরবে না । দািগ পন্ডিত বললেন-এসো মা। তোমার বাড়ী এলাম। —বসন, বসন । --তোমাদের সব ভালো ? -এক রকম। ওই । আধঘণ্টা পরে দােগা পণ্ডিত হাত-পা ধয়ে সস্থ ঠান্ডা হয়ে অনঙ্গ-বৌয়ের কাছে তাঁর দঃখের বিবরণ দিতে বসলেন। যেন অনঙ্গ-বো তাঁর বহদিনের আপনার জন্য। অনঙ্গ বললে-তিন দিন খান নি ? বলেন কি ? --আমিই তো নয়, বাড়ীসদ্ধ কেউ নয়। মা । বলি না খাওয়ার কািট আর সহ্যি হয় না, আমার মায়ের কাছে যাই । --তা এলেন ভালই করেছেন । অনঙ্গ আকাশ-পাতাল ভাবতে লাগলো। আপাতোক বড়োকে কি দিয়ে একটু জল দেওয়া যায়। হঠাৎ তার মনে পড়ে গেল পরোনো দটাে চা পড়ে আছে হাঁড়ির মধ্যে পাটুলিতে। বললে--একটু চা করে দেবো ? দািগ পণ্ডিত খশির সঙ্গে বলে উঠলো-অাঁহা, তা হােলে তো খবই ভালো হােল। কতদিন চা পেটে পড়ে নি । অনঙ্গ-বেী চিন্তিত মাখে বললে-কিন্তু নন-চা খেতে হবে। দধি নেই। -- তাই দাও মা । লবণ-চা আমি বলেত ভালবাসি । শােধ একবাটি নন-চা। তা ছাড়া অনঙ্গ-বোয়ের কিছু দেবার উপায়ও ছিল কি ? রাতে গঙ্গাচরণ এসে দাগী পণ্ডিতকে দেখে মনে মনে ভারি চটে গেল। মাত্রীকে বললেজটেচে। ওটা আবার এসে ? অনঙ্গ-বেী রাগের সরে বললে-জাটেচে । তা কি হবে এখন ? --সলে যেতে বলতে পারলে না ? কি খেতে দেবে শনি ? --তুমি আমি দেবার মালিক ? যিনি দেবার তিনিই দেবেন। YSDD DD BDBD DDBB SBD LDBBS SBDBD BD DD DDBB BBBMBSS তোমার কন্ধে নিয়ে এসে চাপালেন কেন ? -ছিঃ অমন বলতে নেই তাঁর নামে । তিনি ঠিক জোটবেন। এখানে যিনি পাঠিয়োেচন, এও তাঁর কাজ। যোগাবেন তিনি।