পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२२*† अ६ ] সূত্ৰস্থান। రిసి কঙ্ক রসক্রিয়া ও চূর্ণ এই তিন প্রকার প্রতিসারণ । শ্লেষ্মজন্য রোগে শোধন গণ্ডুষ বিহিত ঔষধ দ্বারা এই প্ৰতিসারণ প্রয়োগ করিতে হয় । ( জলদি পিষ্ট দ্রব্যকে কন্ধ এবং মাক্ষিকাদি দ্বারা দ্রবীকৃত দ্রব্যকে রসক্রিয়া কহে ) ৷ ১৫ মুখলেপ তিন প্রকার। যথা-দোষহর, বিষুহর ও বৃৰ্ণকার। বাতােশ্লষ্ম,দোষে উষ্ণ এবং এবং অন্যদোষে (পিত্তে বাতপিত্তে ও বিষে) অত্যন্ত শীতল মুখালের প্রশস্ত। মুখালেপের প্রমাণ তিন প্রকার ; যথা-মুখলেপ আঙ্গুলির চতুৰ্ভাগ ত্রিভাগ ও অৰ্দ্ধ পরিমিত স্কুল ( পূর্ব ) হইবে। ঐ লেপা যতক্ষণ আৰ্দ্ৰ থাকিবে ততক্ষণ মুখে রাখিবো। কারণ শুষ্ক লেপ ত্বককে দূষিত করিয়া থাকে। লেপ তুলিবার সময় উহাকে আদ্র করিয়া তুলিতে হইবে, তৎপরে তৈলাদির অভ্যঙ্গ করিবে। মুখালোপী ব্যক্তি দিবানিদ্রা, অধিক বাক্য কথন, অগ্নি, আতপ, শোক ও ক্ৰোধ পরিত্যাগ করিবে। কারণ দিঝনিদ্রাদি সোপম কণ্ডু, ত্বকে শোখ, পীনস ও দৃষ্টিনাশাদি ভয় উপস্থিত হয় ৷ ১৬-১৮ পীনস অজীর্ণ হনুগ্রহ ও আরোচক রোগে, ন্যস্ত গ্ৰহণাস্তে ও রাত্রি জাগরণে মুখালেপি প্রযোজ্য নহে। ইহা বিধিপূৰ্ব্বক ব্যবহৃত হইলে অকালপালিতা ব্যঙ্গ বলি তিমির ও নীলিকা রোগ বিনষ্ট হয় ॥ ১৯ • হেমন্তাদি ছয় ঋতুতে ছয়ট মুখালেপি কথিত হইতেছে। হেমন্ত ঋতুতে কুল আঁটির শাস, বাসকমূল, শাবীর লোপ ও শ্বেতসর্ষপ ; শিশিরে বৃহতীমূল, কৃষ্ণতিল, দারুহরিদ্র, দারুচিনি ও নিস্তাষ যাব; বসন্তে কুঁশমূল, কপূর বা চন্দন, বেণামূল, শিল্পী মৌরী ও বিড়ঙ্গ ; গ্ৰীষ্মে কুমুদ, উৎপল, কহলার, দূর্বাষষ্টিমধু ও চন্দন ; বর্ষায় কৃষ্ণাগুরু, তিল, বেণামূল, জটামাংসী, তগর পাদুকা ও পদ্মকাষ্ঠী এবং শরৎকালে তালীশপত্ৰ, ভদ্রমুতা, পুণ্ডরীক, যষ্টিমধু, কুশ, জগন্নপাদুকা। ও অগুরুর প্রলেপ দিবেঁটা৷ ২০-২২ O মুখানুেশীল ব্যক্তিদের দৃষ্টি ভীষ্ম হয় এবং মুগ্ধ পর্মসদৃশ বিকসিত ও কোমল হইয়। থাকে ৷৷ ২৩ O al অভ্যঙ্গ সেক পিচু ও বস্তি এই চারিপ্রকার মুদ্ধতৈল ব্যবহৃত্যু” হয়। ইহারা উত্তরোত্তর বহুগুণবিশিষ্ট, অর্থাৎ অভ্যঙ্গ অপেক্ষা পরিষেক, পরিষেক অপেক্ষা পিচু ও তদপেক্ষা”বস্তি অধিক \o°oit 88 • ^উক্ত চারিপ্ৰকার তৈল প্রয়োগের মধ্যে মস্তকের "রুক্ষত্ত্বো, ক * ९ भला°िitछिद्म छमा অভ্যঙ্গ ; মস্তকের ব্ৰণ তোদ দাহ পাক ও ক্ষতাদি নিবারণার্থ পরিষেক ; কেশশাত (চুল উঠিয়া যাওয়া ), কেশতুমি ফুটন, ধূম্নির্গমবং বেদন ও নেত্রস্তম্ভ প্রশমার্থ পিচু (কাপাস তুলা তৈলে ভিজাইয়া ধারণ করাকে পিচু কহে") এবং প্রমাপ্তি, অদিতি, নিদ্রােনাশ, নাসাশোষ, মুখশোষ, তিমির ও শিরোরোগে বস্তিস্নেহ প্রয়োগ করিলে ॥ ২৫/২৬ - শিরোবন্তি বিধি ৷ বামনাদি শুদ্ধ তৈল্যাভ্যাক্ত ও খ্রিস্বয় ব্যক্তিকে । *y, বৃত্রিতে জানুসম উচ্চ ও কোমল আসনে উপবেশন করাইয়া তুহার মস্তকে দ্বাদশায়ািণ মন্তকসমন্দীির্ঘ ও কর্ণ পৰ্যন্ত বন্ধনস্থানযুক্ত গব্য বা মাহিষ্য চৰ্ম্ম ಔ ಫ್ಲ বেণিকা ( ঘৈণীর স্থায় দড়ি ) দ্বারা বান্ধির দিবে। চৰ্ম্মপট্টের নিয়ে লুলাটে ধৰ্ম্মস্থাইয়া সন্ধিস্থান র্যােষকন্ধ দ্বারা Æ> ጳ፰ ቃ