পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১৯১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


და’t \etá; 1 সূত্ৰস্থান। . .9S বাতপিত্তনাশক সকল প্রকার শীতল ক্রিয়৷ বিশেষ হিতকর। অন্নদ্রব্য স্পর্শে শীতল, ক্ষার দ্রব্য স্পর্শে উষ্ণ ; উষ্ণস্পর্শক্ষার, শীতলস্পর্শ অন্নসংযোগে’ শীঘ্রই কটুকলবণ-ভূমিষ্ঠতা ত্যাগ করিয়া মধুর ভাব প্রাপ্ত হয়। মাধুৰ্য্যগুণে ক্ষারযন্ত্রণা শীঘ্র প্রশমিত হইয়া থাকে। অতএব ক্ষারদগ্ধ স্থান অন্নদ্রব্য দ্বারা সম্বর নির্বাপিত কৰূিবে ॥ ৩৮১৯ - , . ক্ষার হইতেও অগ্নি শ্রেষ্ঠ। কারণ অগ্নিদগ্ধ (অর্শ প্রভৃতি) রোগের আর পুনরুৎপত্তি হয় না। সুপিচ ঔষধ, ক্ষার ও শস্ত্রপ্রয়োগ দ্বারা যে সকল রোগের শাস্তি হয় না, অগ্নি চিকিৎসায় সে। সকল রোগও প্রসাধিত হইয়া থাকে৷ ৪০ ৷ ত্বক, মাংস, শিরা, স্নায়ু, সন্ধি ও অস্থিতে অগ্নিদাহ প্রশস্ত। ম্য, অঙ্গগ্লানি, মন্তকের পীড়া, মন্থ ( নেত্র রোগ), চৰ্ম্মকীল ও তিলাদি রোগে পিচু বৰ্ত্তি গৈাব্দন্ত সুৰ্য্যকান্ত মণিও শরাদি দ্বারা ত্বগৃদ্ৰাহ করিবেশ অৰ্শ, ভগন্দর, গ্ৰন্থি, নাড়ীব্র ও দুষ্টব্ৰণাদি রোগে মধুমেহ জাম্ববোষ্ঠ ( শলাকবিশেষ) ও গুড়াদি দ্বারা, মাংসদাহ করিবে। শ্লিষ্টবস্মরোগ, রক্তস্রাব, নীলিকা (ক্ষুদ্ররোগ বিশেষ) রোগে ও অসম্যক শিরা ব্যাধে পুৰ্ব্বোক্ত মধুমেহদি'দ্বারা শিরদিন্দাহ করিবে। ক্ষারবারিতু (ক্ষার প্রয়োগের অযোগ্য) ব্যক্তির এবং অন্তঃশল্য, অন্তঃশোণিত, ভিন্নকোষ্ঠ ও ভূরিব্ৰণ গ্ৰীড়িত ব্যক্তির অগ্নি দ্বারা দাহ নিষিদ্ধ৷৷ ৪১-৪৪ ও রোগস্থান সুন্দগ্ধ হইলে ঘৃত মধু দ্বারা অভ্যক্ত করিয়া তাহাতে যুষ্টিমধু, শালিমূল প্রভৃতি শীতবীৰ্য্য দ্রব্যের স্নিগ্ধ প্ৰলেপু দিবে। . . . . সুন্দগ্ধ লক্ষণ। দুকুমান অবস্থায় প্রবৃত্ত রক্তস্রাব বন্ধ হইলোঁ সেই স্তান বুদবুদের ন্যায় শব্দবিশিষ্ট, লসিকাযুক্ত, পঙ্ক তাল-বর্ণ বা কপোতবর্ণ” বিশিষ্ট, স্বরোহণশীল ও নাতিবেদন হইয়া থাকে । * • • • . দুৰ্দগ্ধ ও অতিদগ্ধের লক্ষণ-প্রমাদা-দগ্ধ লক্ষণ সমূহের তুল্য জানিবে। অনবধানতাবশতঃ আগন্তুক অগ্নিদ্বারা দগ্ধ হইলে তাহাকে প্ৰমাদদগ্ধ কহে ৷৷ ৪৫৪৬ প্ৰমাদ দগ্ধ চারি প্রকার। যথা তুথব্দগ্ধ, সম্যক দগ্ধ, দুৰ্দগ্ধ ও অতিদগ্ধ। যেরূপ দহে ত্বক বিবৰ্ণ (তুতের স্থায় বর্ণযুক্ত ) হইয়া অভু্যন্ত বেদনন্বিত হয়। অথচ স্ফোটােকোৎপত্তি হয় না, তাহাকে ভুখন্ধ বুলে। অধিদ্বারা কিঞ্চিৎ দগ্ধ হইলেই তাহা তুখদগ্ধ নামে অভিহিত হয়। যাহাতে,স্ফোটােৎগত্তিও দহযুক্ত তীব্ৰবেদনা হয়, কাহাকে দুৰ্দগ্ধ বলে। অতিদগ্ধে মাংসলঙ্কন, শিল্পাদির সঙ্কোঁচ, দাহ, ধূম্যনিৰ্গমবৎ বোধ, বেদনা, শিরাদি'র 'নাশ (ব্যাপত্তি), তৃষ্ণা, মুৰ্য, ব্ৰণের গভীরতা ও মৃত্যু পৰ্যন্ত ঘটিয়া থাকে ৷৷ ৪৭৪৮ তুখন্দগ্ধে অগ্নিতাপ ও উষ্ণবীৰ্য্য ঔষধের প্রয়ােগ করবে।y ঘুগুস্থানে রক্ত গাঢ় হইলে অত্যন্ত বেদনা এবং বিলীন হইলে বেদনার লাঘব হয়। সেই জািষ্ঠ উষ্ণক্রিয়া দ্বার, রক্তের বিলিয়ন একদিবে। দুৰ্দগ্ধ স্থানে শীত ও উষ্ণক্রিয়া পৰ্য্যায় ক্ৰমে করিবে , তন্মধ্যে প্ৰথমে শীতক্রিয়া করণীয়। সম্যক্‌দগ্ধে বংশলোচন, পাকুড়, রক্তচন্দন,' গিরিমাটাও গুলঞ্চের কন্ধে স্থত মিশাইয়াৰ প্ৰলেপ দিবে। তৎপরে পিত্তবিদ্রাধির ন্যায় চিকিৎসা করিবে। অতিদন্ধে শীঘ্ৰ পিত্তবিসৰ্পৰ্বং সমস্ত ক্রিয়া করিবে। প্ৰতপ্ত তৈল ঘূতাদি মেহদগ্ধে অত্যন্ত রক্ষ ভেষজ প্রয়োগ 卒筒3 | 6sー&ミ