পাতা:আগামীকাল - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/৭২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অবশ্যই ? rar মণি কে এতদিনে কতটুকু চিনেছ জলধি ? লালসা-মাখানো দণ্টিতে অষ্ট্ৰক্ষণ উত্ত ওর মাখের দিকে তাকিয়েই থাকতে । ওর ভেতরটাকে যাচাই করার অবকাশ কোথায় ছিল। তোমার! আমি ওর মধ্যে নাবীসত্তার জাগ্ৰত প্রতিভার আভাষ পেয়েছিলাম। সকল্যাণ মিটারের নারী কল্যাণ সমিতিই ওর উপযন্ত স্থান। কিছ. করার, নিজেকে প্রকাশ করা: অন্ততঃ সংযোগ পাবে মনি। আর আমাদের সবদেশ কল্যাণ-সংঘ ? অস্বীকার করার উপায় নেই, এটা অবসর বিনোদনের একটা আখড়ামাত্র। যদিও অনেক বড়-বড় কথা লিফলেট ছাপিয়ে জনগণের কাছে আমাদের ভূয়ো-কমন্সচেী প্রচার করে বাহাবা নেয়ারচেন্টাই আমাদের অন্যতম কতব্য বলে আমরা মনে করি । এতেই আমরা তাপ্তির ঢেকুরু তুলি অস্বীকার করতে পার জলধি ? ऊर्जा निद“क द्वंदेन ! কিগো সৰ্ব্বদেশ কল্যাণ-সঙ্খের মহাসচিব, চুপ করে রইলে কেন, কিছ: ত বল ? অবশ্যঃ তোমার ঘাড়ে সব দোষ চাপিয়ে দিয়ে আমি কিন্তু সাকাই গাইতে চাইছি না। জলধি } নিজের অক্ষমতাও সম্বীকার করছি { জলধি বললে, একাকড়ি দা, আমি আগেও কোনদিন আত্মার আলোচনা করব না । কল্যাণ-সঙ্ঘের আপনিই দেহ, আপনিই প্ৰাণ । আর আমরা শােধ মাত্র অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ । চালান হেসে এককড়ি বললে, আমি ত আগেই আমরা অযোগ্যতাই বল, আৰু অক্ষমতাই বল স্বেচ্ছায় স্বীকার করে নিয়েছি । আমি তোমার দোষারোপ কয়ছি মনে করে থাকলেও কিন্তু আমার প্রতি অবিচারই করা হবে জলধি । আমি ত সেই কবেই পরের হাতে ঠেলে ফেলার আগেই সর্বদেশ-কল্যাণ-সঙ্ঘের গঙ্গা যাত্রা সমাধা করার জন্য অন্যািমতি চেয়েছিলাম। আপনিই ত বাধ সেধেছিলেন সেদিন । শেষ নি:শব্যাসটিকু বোরোবার পতবে সমারোহ করে কল্যাণ-সঙ্ঘের সাইনবোডটাকে গঙ্গার ঘাটে নিয়ে যেতে চেয়ে ছিলে, তাই না ? হাঁ ঠিক তা-ই। এই যে আলমারি বোঝাই খাতাপত্রে অব্যবহারে ধলো জমছে, এরা সংখ্যায় ও ওজনে কোন অংশে কম নয় । কিন্তু কি-ই বা দাম ? একটা কানাকড়িও নয় । সেদিন আমি সৎ-পরামশাই দিয়েছিলাম, দেশলাই জেলে সৎকার-পবটা সসম্পন্ন করে ८ ॥ তোমার ক'দিন ধরে হ’ল কি জলধি, বলত ? মানি নেই বলে সংস্থা উঠিয়ে দিতে হবে ? আমি যদি বলি, মণির সাথেই কল্যাণ-সংঘকে টিকিয়ে রাখতে হবে ? নাভিপ্ৰাবাস যদি সত্যই উঠে থাকে। তবে প্রয়োজনে অক্সিজেন দিয়ে একে টিকিয়ে রাখতে হবে জলধি জলব্ধি ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে রইল । এককড়ি বললে, কি হে, কিছু বঝতে পার নি ? জলধি মাথা ঝাঁকাল । GO