পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


• खो भि व চাঁপার দিকে গোরাটার নোটের তাড়া বাড়িয়ে ধরার সবটুকু দোষ গিয়ে পড়ে রসুলের ঘাড়ে । রসুল ভাবে, গোরাটা যদি হাত দিত মাগীটার গায়ে! কি খুসিই সে হত ! তাকে জব্দ করতে চালাকিবাজী খেলার মজাটা টের পেয়ে যেত ব্যাটারা। বলবে না ভেবেও আজিজের কানে কানে কখন যে সে কথাটা বলে ফেলে। আজিজ কনুই দিয়ে তার বুকে একটা খোচা মেরে হাসতে থাকে। আধখানা চাদ আকাশে উঠেই ছিল। দিনের আলোটা মান হতে হতে এক সময় আধো জ্যোৎস্না হয়ে যায়। শা”পুরের নির্জন রাস্তার মাথায় বাসটা থামলে রসুলেয়াই আগে নেমে যায়। চাপা নামবার সময় একজন গোরা তার আঁচলটা চেপে ধরে, হঁ্যাচক টান দিয়ে আঁচল ছাড়িয়ে চাপা হুড়মুড় করে বাস থেকে প্ৰায় নীচে গড়িয়ে পড়ে । আরও একটু দাড়িয়ে বাস ছেড়ে দেয়। তখন সেই চলন্ত বাস। থেকে টুপটাপ করে নেমে পড়ে পাঁচজন গোরা। শা’পুরের রাস্তা ধরে রসুলেরা তখন খানিকটা এগিয়ে গেছে। বড় রাস্তা থেকে শা”পুর প্রায় আধিক্রোশ তফাতে,আঁকা বঁকা গাছপালা ঢাকা পথ। প্ৰথম বঁাকটা ঘুরবার সময় মুখ ফিরিয়ে রসুল দেখতে পায়, চাপারা জোরে জোরে পথ হাঁটতে সুরু করেছে, তাদের কয়েক হাত পিছনে আসছে গোরারা । বাসের শব্দ দূরে মিলিয়ে যায়। ক্ষেত মাঠ জিলা জঙ্গলের মুখর। C