পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


37写で77 শীতে ঠক ঠক করে কঁাপিতে কঁাপিতে মঙ্গলা খুড়িয়ে খুড়িয়ে ডোবা থেকে উঠে আসে। পুলিশ হঠাৎ গায়ে হানা দিয়েছিল মাঝরাতে। সেই থেকে এই সকাল পৰ্য্যন্ত সে ডোবার জলকাদায় আগাছার মধ্যে গা ঢাকা দিয়ে কাটিয়েছে। হাঙ্গামার পর থেকে এই নিয়ে পুলিশ সাতবার হানা দিল গায়ে । আবার যদি হানা দেয় কিছুকাল পরে, শীত যখন আরও বেড়ে যাবে, এতক্ষণ ডোবায় এভাবে লুকিয়ে থাকতে হলে ডোবার মধ্যেই সে জমে কাঠ হয়ে যাবে, নিশ্চয়, উঠে আর আসতে হবে না। অস্ত্ৰাণের শেষেই হাত পা তার অসাড় হয়ে গেছে, পোষ মাঘের বাঘ মারা শীত সইবে কতক্ষণ ! হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে দিশেহারা হয়ে ছুটে ডোবায় নামবার সময় বঁ। পায়ের তলাটা কিসে যেন কেটে গিয়েছিল অনেকটা, ভাঙ্গা কঁাচে না শামুকগুগলিতে কে জানে। কত রক্ত যে বেরিয়ে গেছে দেহ থেকে ঠিকানা নেই। আঁচল জড়িয়ে শক্ত করে বেঁধেও রক্ত বন্ধ করা যায়নি বহুক্ষণ, চুইয়ে চুইয়ে রক্ত পড়েছে সে বেশ টের পেয়েছে। আঁচলটা কি লাল হয়েছে দ্যাখো । সকাল বেলার রোদের মৃদু। তেজে মঙ্গলার অসাড় অঙ্গপ্ৰত্যঙ্গে ধীরে ধীরে সাড়া আসে, ঘন ঘন কেঁপে কেঁপে সে শিউরে ওঠে। হঠাৎ (V8