পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কঠিনতা ও পরিমাণ দেখিয়া আমার ভয় হইল। তাহা বঙ্গানুবাদের কাজ। ঐ কাজ করিয়া VSS Robinson it বহুমূত্র রোগে মারা গিয়াছিলেন, এবং তঁহার পাৱে আমার ভ্রাতৃসম অনুরসদৃশ রাজকৃষ্ণ মুখোপাধ্যায়ও ঐ রোগে মারা গিয়াছিলেন। তাই ঐ কাজ লইতে আমার ভয় হইয়াছিল। তাই আমি ঐ কাজের জন্য দরখাস্তও করি নাই। Croft সাহেবের উপর ঐ কাজের জন্য লোক নিৰ্বাচনের ভার ছিল। তিনি আমাকে নানা রকমে ঐ কাজ লওয়াইবার চেষ্টা করিয়াছিলেন। আমিও অবশেষে লইয়াছিলাম। কাজের মতন কাজ বটে । পরিমাণও যেমন বেশী, প্ৰকৃতিও তেমনি কঠিন । ইংরাজী আইনের বাঙ্গালা অনুবাদ কি দুরূহ ব্যাপার, যিনি না করিয়াছেন, তিনি বুঝিবেন না, বুঝাইলে বুঝাইতে পরিবেন। কিনা সন্দেহ। অনেককে বঙ্গানুবাদকের অনুবাদের ঠাট্টা করিতে দেখিয়াছি। ঠাট্টা করা যাইতে পারে না, এমন নয়। কিন্তু "অনুবাদককে যে সকল নিয়ম পালন করিয়া অনুবাদ করিতে হয়, সেই সকল নিয়ম লঙ্ঘন না করিয়া স্বয়ং বৃহস্পতি অনুবাদ করিলে, তাহার অনুবাদেরও যে ঠাট্টা করিতে পারা যায়, ইহা আমি বুক ঠুকিয়া বলিতে পারি। না জানিয়া না শুনিয়া না বুঝিয়া ঠাট্টা বিদ্রুপ করা এখনকার একটা রোগ হইয়া দাড়াইয়াছে।-বড় বেয়াড়া, বড় দুশ্চিকিৎস্য রোগ। আমরা প্ৰত্যেকেই এখন ভাবি আমরা সকলের চেয়েই পণ্ডিত, তাই অপর সকলকে ঠাট্টা করিতে কুষ্ঠিত হই না। অনুবাদকের কাজ লইয়া দেখিলাম-কাজের পরিমাণের যেমন সীমা নাই, উহার প্রকৃতিও তেমন কঠিন। আর ঐ কাজ করিয়া দিতে বড় তাড়াতাড়ি করিতে হইত ; দুই দিনের কাজ দু’ঘণ্টায়, ১০ দিনের কাজ পাঁচ ঘণ্টায়, ইত্যাদি । আদেশমত কাজ সম্পন্ন করিয়া দিবার জন্য প্ৰাণপণে চেষ্টা করিতাম। কখনও একটি কৈফিয়ৎ দিতে হয় নাই। কোনও কাজ করিয়া দিতে ངན་ বিলম্ব হইলে, যে আপিসের কাজ, সে আপিস হইতে non-official enquiry মাত্র হুইত, অর্থাৎ কাজ কত দিনে হইবে জানিয়া যাইবার জন্য একজন কৰ্ম্মচারী প্রেরিত হইত। কখনও কড়া চিঠি আসিত না । এই কাজ যখন লইয়াছিলাম, তখন গবর্মেন্টের সহিত সর্ত করিয়াছিলাম যে, ছয় মাস কাজ করিয়া দেখিব, যদি শরীর না বয়, ছয় মাসান্তে লাইব্রেরীর কাজে ফিরিয়া যাইতে পারিব। কাজ কিন্তু এত অধিক ও কঠিন যে, ৩/৪ দিন মাত্ৰ করিয়া আমার মাথা এত ঘুরিয়াছিল যে, ভয় পাইয়া Croft সাহেবের কাছে গিয়া বলিয়াছিলাম-এ কাজ আমার দ্বারা হইবে না, আমাকে লাইব্রেরীতে ফিরিয়া যাইতে দিন । তিনি আমাকে নিরুৎসাহ করিলেন না, কিন্তু কৌশল করিয়া আমাকে একাজে এক মাস রাখিলেন। কৌশল এইরূপ, যে দিন সাহেবের কাছে লাইব্রেরীতে ফিরিয়া যাইবার অনুমতি চাহিয়া আসিলাম, 8 e