পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সকলের সহিত বসা-দাড়া করিতেন, কিন্তু ব্ৰাহ্মণ, কায়স্থ বৈদ্য প্ৰভৃতি কোন সদ্যজাতির LBDLDLL YLD DLLD D S YKS YBD DSS S SBE DB SBBDD D ঘনিষ্ঠতা করিতে, গবৰ্ণমেণ্টের প্রাচীন বিধি-বিধানে নিষেধ ছিল । সাহেবেরা অবািঞ্জ DBD DDBB DDD DDS DDBB BBY DBBBDBD BBD BuBDS B DD GLY লেহ-পেয় সেবা করিয়া আসিতেছেন । কিন্তু সে কথা বলেই বা কে,--আর ধরেই বা কে ? কিন্তু সাহেবের মানুন আর নাই মানুন, ওগুলো নিষিদ্ধ। বাঙ্গালিরা সকলেই যে এই নিষেধ মানিয়া থাকেন তাহাও নহে, তবে পিতা অতিরিক্ত মাত্ৰায় এই নিষেধ বিধি প্ৰতিপালন করিতেন । কোন ভদ্রলোকের বাড়ীতে একটা ডাব খাওয়াও যেন গ্লানিকর মনে করিতেন। দুই এক স্থলে যৎকিঞ্চিৎ মাত্র ব্যভিচার ছিল । শুনিয়াছি তিনি কটকে থাকার কালে পুরীর রাজা তাহাকে, চোপদার প্রভৃতি সঙ্গে দিয়া, বৃহৎ রূপার থালে, গুটি আষ্টেক পটল পাঠাইয়া দেন। পটল তখন কটকে বারমাসই দুর্লভ ছিল। বাবা প্ৰত্যাখ্যান না করিয়া রাজদূ কে দুই মুদ্রা পারিতোষিক দেন, এবং পটল কয়টি গ্রহণ করেন, পরে সেবনও করিয়াছিলেন। মুর্শিদাবাদে, নবাবের বৎসরে দুইবার ভেট ; জ্যৈষ্ঠে আমের, আর শীতে মেওয়ার, সকল কৰ্ম্মচারীই গ্ৰহণ করিতেন । পিতাও গ্ৰহণ করিতেন । প্ৰত্যাখ্যান করা অন্যায় মনে করিতেন । আর মহারাণী স্বর্ণময়ীর ভোজ, তাহার বাড়ীতে নয়, তাহার পুরোহিতের বাড়ীতে, উকীল আমলা দলবলের সঙ্গে পিতা গ্ৰহণ করিয়াছিলেন । আর মফস্বল তদারক করিতে গিয়া, রাত্রি যাপনার্থ রুচিৎ। কোন ব্ৰাহ্মণের বাটিতে প্ৰসাদ পাইয়াছিলেন । আর একস্থানে মুসলমানের সিধা লইয়া, নিজ ব্ৰাহ্মণের পাকে আহার করিয়া, দুই দিনের পর দেহ রক্ষা করিয়াছিলেন । ঢাকাবাসী এইবার তাহদের সাধের সাব-জজকে অবসরপ্রাপ্ত পাইয়া, বিশুদ্ধ গঙ্গাচরণবাবু রূপে পাইয়া, শৃঙ্খল-বিমুক্ত বন্ধুভাবে প্রাইয়া ভোজে নাচে, উৎসবে মাতিয়া উঠিল। আমি ও আমার বন্ধু, হুগলী নৰ্ম্মালের পণ্ডিত শ্ৰীযুক্ত পূৰ্ণচন্দ্ৰ মুখোপাধ্যায় সংগ্রামের পূৰ্ব্বে রণ-রঙ্গ-স্থলে উপস্থিত হইলাম। কিন্তু আমার কায়ন্থের উদার, দিন দিন পৰ্যায়-নুন্যস্ত সে ভোজের ভার সহিতে পারিল না। আমি অবসন্ন হইয়া পড়িলাম। আমার বন্ধু ব্ৰাহ্মণ ; তাহাতে চিরদিনই ফলাহার-পটু ; তবু পলায়-দায়ে বিপন্ন হইয়া পড়িলেন । তবে রণে ভঙ্গ দিলেন না । পিতা কিন্তু অক্ষুন্ন অটুট । সকল জায়গায় সমানে যাইতেছেন, আহার করিতেছেন, বক্তৃতা করিতেছেন, থিয়েটার দেখিতেছেন। একবারও অবসাধ বোধ করিতেছেন না। কে বলিবে বৃদ্ধি, কাৰ্য্য হইতে অবসর লাইতেছেন। যেন যুবা পুরুষেয় কাৰ্য্যক্ষেত্রে এই প্ৰথম উত্তম । থিয়েটারে মেঘনাদ ৰধ হইয়াছে, প্ৰমীলা সহগামিনী হইবেন । রাবণ স্পীচ দিয়া চলিয়া গেলেন। জন্য b”ክሕ