পাতা:আত্মচরিত (শিবনাথ শাস্ত্রী).pdf/১৪৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


98R चिंदनांथें नांौद्ध स्थांbब्रिख्या চলিয়া গেলে, যখন তাহার মা আমার গলা জড়াইয়া কঁাদিয়া বলিলেন, “বাবা, তুমিও কি আমাদিগকে ছেড়ে যাবে?” তখন আর তাহাদিগকে ছাড়িতে পারিলাম না । তঁহাদের সঙ্গে আরও কয়েক মাস রছিলাম। এই ১৮৬৯ সালের বসন্ত কালে আমরা সংস্কৃত কলেজের ছাত্রগণ মিলিয়া শোভাবাজারের রাজবাড়ীর নাটমন্দিরে সংস্কৃত বেণীসংহার নাটকের অভিনয় করিলাম। তাহার বিবরণ এই। সেবারে বি-এ পরীক্ষাতে সংস্কৃত বেণীসংহার পাঠ্য ছিল। আমাদের কলেজের উচ্চ শ্রেণীর ছাত্রেরা মনে করিলেন সংস্কৃত বেণীসংহার অভিনয় করিয়া দেখাইলে বি-এ ক্লাসের ছেলেদের বিশেষ উপকার হইতে পারে। এই ভাবিয়া তাহারা বেণীসংহারের অভিনয়ের যোগাড় করিতে লাগিলেন। অগ্ৰে ভঁৰ্তাহারা আমাকে সে সংবাদ দেন নাই, অথবা আমাকে তাহাদিগের পরামর্শের অংশী করেন নাই। যখন তঁহাদের কাজটা কিয়দুর অগ্রসর হইয়াছে তখন আসিয়া আমাকে তাঙ্গাতে যোগ দিবার জন্য ধরিলেন। আমার পরামর্শটা মন্দ বোধ হইল না। বিশেষতঃ অভিনয় দেখা আমার বাতিক। বর্তমান বঙ্গ রঙ্গভূমি-সকলে বারাঙ্গনা অভিনেত্রী প্রবিষ্ট করিবার পূর্বে আমি প্ৰায় প্রতি শনিবার অভিনয় দেখিতে যাইতাম। স্মরণ আছে যে সোমপ্ৰকাশের প্রতিনিধিরূপে হরিনাভি হইতে অভিনয় দেখিতে কলিকাতায় আসিতাম। বারাঙ্গনা অভিনেত্রী যেদিন হইতে আসিল সেদিন হইতে আমার অন্তৰ্দ্ধান । সে যাহা হউক, সহাধ্যায়ী ছাত্রেরা যখন আমাকে ডাকিল, তপন তাহাদের কমিটিতে থাকিতে রাজি হইলাম এবং নিজে একজন অভিনেতা হইতে প্ৰস্তুত হইলাম। আমি হইলাম যুধিষ্টির, আমার বন্ধু যোগেন্দ্ৰ হইলেন অর্জন ও অপর বন্ধু উমেশ হইলেন অশ্বথামা। কলেজের নিয়শ্রেণীর কয়েকটি সুন্দর সুন্দর ছেলে দেখিয়া অভিনেত্রী