পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১০১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


BB DDDu BDDDBBDS DBDBD DDDDD DBBD S DD BDBDB DBBB sBBBu BBB আনিয়া ইহাদের সঙ্গে বাস করিতে লাগিলাম। মাসের মধ্যেই তাঁহার সর্বাস্থ্য একেবারে ভাঙিয়া গেল। আমার সকলারশিপ মাত্র অবলম্পােবন, এদিকে আবার বি. এ. পরীক্ষার বৎসর উপস্থিত। সাংসারিক চিন্তা, রোগীর সেৰা, শিশৱকন্যা হেমলতার রক্ষণাবেক্ষণ, এই সকল কারণে আমার পাঠের সমােহ ক্ষতি হইতে লাগিল। এই সময় সবগীয় ডাক্তার অন্নদাচরণ খাস্তগির মহাশয় ও অপরাপর কতিপয় ডাক্তার বন্ধ সহায় না হইলে এই বিপদ সাগর উত্তীর্ণ হইতে পারিতাম না। ১৮৭০ সালের ৮ই শ্রাবণ আমার দ্বিতীয়া কন্যা তরঙ্গিণীর জন্ম হইল। সে সাত মাসে জন্মিয়াছিল। তাহাকে তুলার বিছানা করিয়া কৃত্রিম তাপ দিয়া বাঁচাইতে হইয়াছিল বলিয়া তাহার নাম ‘তুলী’ হইয়া গিয়াছে, এবং তাহাই অদ্যাপি আছে। তাহার জীবন রক্ষা খাস্তগির মহাশয়ের চিকিৎসা-পারদশি তার একটি উক্তজবল, প্রমাণ। সে যে বাঁচবে, কেহই তাহা মনে করে নাই। দই-একমাস পরেই বায় পরিবর্তনের জন্য, কলাইঘাটার যে কুঠীতে উৎসব হইয়াছিল এবং যেখানে তদবধি আমাদের ব্ৰাহম বন্ধ, নীলকমল দেব ছিলেন, সেখানে প্ৰসন্নময়ীকে রাখিয়া আসি ; এবং আমি ৩৩নং মসলমান পাড়া লেনে, যে বাসাতে রজনীনাথ রায়, নন্দলাল রায়, সারদানাথ হালদার, শ্ৰীনাথ দত্ত, কালীপ্রসন্ন চক্লবতী প্রভৃতি সহদীক্ষিত ব্ৰাহম বন্ধগণ বাস করিতেছিলেন, সেই বাসাতে তাঁহাদের সঙ্গে গিয়া বাস করিয়া বি. এ. পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত হইতে থাকি। তখনকার মেম-মাল্টার। এ সময়ের একটি স্মরণীয় ঘটনা গণেশসন্দিরীর খীস্টধম গ্রহণ ও তৎপরে ব্রাহামসমাজে আগমন। গণেশসন্দিরী কলিকাতা নিবাসী এক বৈদ্য পরিবারের বিধবা কন্যা। মিশনারী মহিলাগণ তখন হিন্দ গহস্থাদিগের বাড়িতে বাড়িতে অন্তঃপরিবাসিনী হিন্দ ললনাদিগকে পড়াইয়া বেড়াইতেন। অতি অলপ ব্যয়েই তাঁহাদিগকে পাওয়া যাইত। এইজন্য অনেক ভদ্রলোক নিজ গহে তাঁহাদিগকে ডাকিয়া সর্বীয়-স্বীয় ভবনের মহিলাদিগকে পড়াইতে দিতেন। আমিও প্রসন্নময়ীকে আনিয়া প্রথমে এইরপে পড়াইবার বন্দোবস্ত করিয়াছিলাম। তৎসম্পবন্ধে একটি কৌতুককর গলপ মনে আছে। তাহা এই স্থানে বলিতে ইচ্ছা করিতেছে। যে মেম প্রসন্নময়ীকে পড়াইতেন। তিনি সপ্তাহে দইদিন আসিতেন। একবার আসিয়া, মেম মানবের আদি পিতা মাতা আদম ও হবার (এ্যাডাম এ্যান্ড ঈভ) বিবরণ মাখে মখে প্ৰসন্নময়ীকে বলিয়া গেলেন। তাহার পর গহকমে ব্যাপাত হইয়া প্ৰসন্নময়ী আদমহবার কথা সমন্দিয় ভুলিয়া গেলেন। দ্বিতীয় দিনে আসিয়া মেম জিজ্ঞাসা করিলেন, “বোঁ, মানবের আদি পিতা মাতা কে ছিল ?” প্রসক্ষময়ী তো অন্ধকার দেখিলেন, আদম ও হবা মনে আসিল না। তখন মেম তিরস্কার করিয়া বলিয়া গেলেন, “তোমার বাবকে জিজ্ঞাসা করিতে পার না ?” মেম পনরায় আসিবার দিন প্রাতে প্ৰসন্নময়ী আমাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, “হ্যাঁ গো, মানুষ আগে কি করে হল ?” আমি বলিলাম, “তা কে জানে ? তবে একজন পশিডত বলেছেন যে আগে মানষ বানর ছিল, বানর হল ?” প্ৰসন্নময়ীর আবার আদম-হবা মনে নাই। মোম তখন বিরক্ত হইয়া বলিলেন, ܬܬ