পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


DDBBD Bu DBBDB DDBB S BBD DDDuDS BBDS DBBDDD DDBB টানাটানির অবস্থাতে ভিতরকার কেশবশিষ্যগণের একজনের হাতে বোধ হয় গেটের লোহার রেলের আঘাত লাগিয়া থাকিবে। বাহিরে কথা উঠিল, প্রতিবাদীরা হাতে কামড়াইয়া দিয়া গিয়াছে। ইহা লইয়া হাসােহাসি ও সংবাদপত্রে কিছদিন ঠাট্টা তামাশা त्रिकाशाछिदन । এই সংবাদ শহরে ছড়াইয়া পড়াতে সেই দিন বৈকালে মন্দিরের দাবারে শহরের লোক জড় হইল। আমাদের পক্ষীয় বন্ধ্যরা আবার সন্ধ্যার সময় সাজিয়া-গাজিয়া আপনাদের নিযক্ত আচাৰ্য রামকুমার বিদ্যারত্নকে সঙ্গে লইয়া বেদী অধিকার করিবার জন্য গেলেন। আমাকে সঙ্গে যাইবার জন্য বিশেষ অনরোধ করাতেও আমি গেলাম। না। ব্রহে মাপাসনার অধিকার স্থাপন করিতে যাওয়া আমার ভালো লাগিল না। বন্ধ্যরা গিয়া দেখেন, সাধ, অঘোরনাথ গপত অপরাহু ৪টা হইতে বেদী অধিকার করিয়া বসিয়া শাস্ত্র পাঠ করিতেছেন। তাঁহারা স্থির ভাবে বসিয়া অপেক্ষা করিতে লাগিলেন। ক্ৰমে উপাসনার ঘণ্টা বাজিল, অঘোরবাব নামিতেছেন, ওদিকে বিদ্যারত্ন ভায়া অগ্রসর হইবার উদ্যোগ করিতেছেন, এমন সময় কে পশ্চাৎ হইতে তাঁহার কাপড় ধরিয়া টানিয়া রাখিল।। ওদিকে কেশববাব পালিস-বেষ্টিত হইয়া আসিয়া বেদী অধিকার করিলেন। অমনি প্রতিবাদীর দল, প্রায় ৭o ॥৮ oজন, মন্দির ত্যাগ করিয়া আসিলেন। আমি তখন মন্দিরের পাশে বা আমার পরিচিত এক বন্ধ ডাক্তার উপেন্দ্রনাথ বসার বাড়িতে কি হয় জানিবার জন্য অপেক্ষা করিতেছিলাম, লতাজা ও সঙ্কোচাবশত প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে মন্দিরের মধ্যে যাই নাই। প্রতিবাদীর দল মন্দির হইতে তাড়িত হইয়া ডাক্তার বসার বাড়িতে আসিলেন। তাঁহাদিগকে লইয়া আমি ব্রিহে মাপাসনা করিলাম। এই আমাদের সর্বতন্ত্র উপাসনা আরম্ভ হইল। উপাসনালেত প্ৰতিবাদকারী দল আবার মন্দিরে অধিকার সন্থাপন করিতে গেলেন। আমি সে সঙ্গে গেলাম না। শনিলাম কেশববাবার উপাসনা তখনো শেষ হয় নাই। তাঁহার উপাসনা শেষ হইবামাত্র প্রতিবাদকারী দল নিচে বসিয়াই সঙ্গীত আরম্ভ করিলেন। যেই তাঁহাদের সঙগীত আরম্ভ হওয়া, অমনি উমানাথ গপত প্রভৃতি কেশববােবর কয়েকজন অনাগত শিষ্য খোল করতালের ধবনি করিতে করিতে নিচে আসিলেন। তাঁহাদের “দয়াল বল জড়াক হিয়া রে” এই গান ও খোল করতালের ধবনি অপর পক্ষের সঙ্গীত চাপা। দিয়া ফেলিল। পলিস সম্পারিস্টেডেণ্ট কালীনাথ বস, সদলে আসিয়া প্রতিবাদকারী দলের মানষদিগকে বাছিয়া বাছিয়া মন্দির হইতে বাহির করিয়া দিতে লাগিলেন। সাধারণ ব্ৰাহমসমাজ। ইহার পরে পত্র চালাচালিতে কিছদিন গেল। ওদিকে ব্ৰাহমসমাজ কমিটি সমন্দিয় বিবরণ দিয়া কলিকাতার ও মফঃসলের ব্রাহ্যগণের অভিপ্ৰায় জানিবার চেন্টা করিতে লাগিলেন। অধিকাংশই সর্বতন্ত্র সমাজ সন্থাপনের পরামর্শ দিলেন। তদনসারে পরবতী ২রা জ্যৈািঠ (১৫ই মে) দিবসে টাউন হলে ব্ৰাহমাদিগের সভা ডাকিয়া সাধারণ ব্ৰাহমসমাজ স্থাপিত হইল। এই বিবাদের বিষয় ভাবিতেও ক্লেশ, লিখিতেও ক্লেশ, কিন্তু বিবাদটা যখন ব্ৰাহসমাজের ইতিব্বত্তের অঙ্গ হইয়া গিয়াছে, তখন সে বিষয়ে যতটা সমরণ হয় লিখিয়া রাখা ভালো বলিয়া লিখিলাম। দলাদলিতে মানষেকে কিরােপ অন্ধ করে, তাহা দেখাইবার জন্য একটি ঘটনার উল্লেখ করিয়া এই অংশের উপসংহার করিতেছি। S8S