পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S DDD BB DD BB BDD DDBS DBD BDB SBD DD BB TDD BrDBY DD BDuDB BDDDD DB DDuuuL BE BBDuuDuuu DDD লইয়া অঙ্গলির অগ্নাড়াগে করিয়া তাহার মাখে জল দিতে লাগিলেন। সখের বিষয় পাখিটি মরিল না। তিনি পথের একজন লোককে পাখিটি দিয়া গন্তব্য স্থানের অল্প একবার আমি পথে যাইতেছি, আমার সম্মখে আর একজন লোক যাইতেছে। আমি দেখিতে পাইলাম, দরে আমাদের সম্মখস্থ রাস্তার পাশে বা একটি ছাগল ‘বাঁধা রহিয়াছে। অমনি ঢিল, ছড়িবার প্রবত্তি আসিল। বলিতে লজা হইতেছে, ভোঁ করিয়া এক ঢিল, ছড়িলাম। সে নিরপরাধ প্রাণী চরিতেছিল, আমার ঢ়িল গিয়া বোধ হয় তাহার মাথায় লাগিল। বঝিতে পারিলাম না, কেবল মাত্র BDBBS BBBD BBD DDD DDDD DDBDD DuBD BB BBDBDBD BBDDDD পড়িতে লাগিল। ঐ দেখিয়াই আমি পশ্চাৎ হইতে চক্ষাপট। আর এক পথ ধরিয়া BD DDDDD DBB BBD DD BDS BBBD BBD S uBBS BDBDDBD BDD DB DD DDuDBS BD BB BBDDD DDBB DDD BB SDD BDBD gBBDB DDDD BDBD DDBDBS BDD BDBBDBDB DDDD লক্ষ্য করিতেও ভালোবাসিতাম। যদি দৈবাৎ উঠানে কোনো পাখি আসিত, তাহা হইলে আমি, মা খড়ী জেঠী যে কেহ সে সময় কথা কহিতেন, সকলের মািখ চাপিয়া ধরিতাম, “চুপ কর, চুপ কর, পাখি এসেছে।” একবার পাখি দেখিতে গিয়া হাতির পায়ের মধ্যে পড়িয়া গেলাম। তখন আমাদের গ্রামে পোলবন্দী ইঞ্জিনিয়ার সাহেবের হাতি যাইত, কারণ, রেল বা রাস্তা ঘাট ছিল না। একবার আমি পাঠশালে বা স্কুলে যাইবার জন্য বাহির হইয়াছি, দপতরটি বগলে আছে; এমন সময় হঠাৎ একটি নতন রকমের পাখি দেখিলাম, যাহা পবে কখনও দেখি নাই। সে লেজ তুলিয়া চমৎকার শিস দিতেছে। আমি চিত্ৰাপিতের ন্যায় দাঁড়াইয়া গেলাম, “এ কি পাখি ?” নিমগন চিত্তে তাহার প্রত্যেক গতিবিধি লক্ষ্য করিতে লাগিলাম। ওদিকে পোলবন্দী সাহেবের হাতি আসিতেছে। মাহত চোচাইতেছে, পাড়ার লোকেরা। “ওরে আমকের ছেলে, মালি মালি, পালা পালা” বলিয়া চোচাইতেছে। আমার সেদিকে খেয়াল নাই, কানো একটা আওয়াজ আসিতেছে মাত্র, কিন্তু সম্পপণ চেতনা হইতেছে না। এমন সময় হঠাৎ দেখি হাতি শািড় দিয়া আমাকে ধরিবার চেষ্টা করিতেছে। মাহত বোধ হয় আমাকে সরাইয়া দিতে ইঙ্গিত করিতেছে। হাতির শািড় দেখিয়াই ভয়ে চীৎকার করিয়া সরিয়া গেলাম। আমি যে কিছ দেখিলেই এত মনোযোগী হাইতাম, তাহার কারণ বোধ হয়। এই যে, শৈশব হইতেই আমার কারণানসন্ধিৎসা বড় প্রবল ছিল। মায়ের মাখে শনিয়াছি যে, আমি দাঁড়াইতে ও কথা কহিতে শিখিলেই সকল বিষয়ে ‘কেন” “কেন? এক পাড়ায় নিমন্ত্রণে যাইতেছি, হঠাৎ পথে একটি নতন গর, দেখিলাম। আমনি প্রশান-ও কাদের গর, উত্তর-পাটেদের গর। প্রশন-এখানে কেন রেখে গেছে ? উত্তর-ঘাস খাবে বলে। প্রশন-কোন ঘাস খাবে ? উত্তর-দক্ষিদে পেয়েছে বলে। প্রশন-কোেন ক্ষিদে পেয়েছে? উত্তর-সমস্ত রাত কিছ খায়নি বলে। প্রশন-কেন খায়নি ? উত্তর-ওরা রাত্রে গরকে জাবনা দেয় না বলে। প্রশন-কেন রাত্রে জাবনা O SR