পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রপিতামহদেব, জপ তপ পজাদিতে প্রতিদিন প্রাতে প্রায় দেড় ঘণ্টা সময় যাশন । করিতেন। প্রথমত প্রায় একঘণ্টা কাল দেব দেবীর পজিন ও জাপ, প্রভৃতিতে যাইত, . তৎপরে প্রায় আধা ঘণ্টা কাল পিতৃপরিষের তপণে অতিবাহিত হইত। তৎপরে প্রায় । আধা ঘণ্টা কাল মাটিতে মাথা ঠাকিয়া ইন্টদেবতার চরণে প্ৰণাম ও প্রাথনি হইত। - এই প্ৰণাম করিয়া করিয়া তাঁহার কপালের উপরে একটা আবের মতো মাংসের গলি । জামিয়াছিল। মাথা ঠাকিয়া যখন প্রার্থনা করিতেন, তখন আমার মা কোনো কোনো দিন কান পাতিয়া শনিতেন। একদিন মা শনিলেন যে, তিনি মখে মাখে। বাংলা । ভাষাতে তাঁহার ইমেটদেবতার চরণে আমার বিদেশবাসী পিতার জন্য প্ৰাথনা করিতেছেন। বলিতেছেন, “মা দয়াময়ি! সে বিদেশে পড়ে আছে, তাকে রক্ষা করো। সে কাহারও বারণ শোনে না, তাকে সমিতি দেও,” ইত্যাদি। সবশেষে উঠিয়া দাঁড়াইয়া দিগম্বরমাতি বালক, মা আমাকে খেলার ভিতর হইতে ধরিয়া আনিতেন এবং প্রপিতামহের হাতে হাত দিয়া নাচিতে বলিতেন। অমনি দইজনে হাতে হাত ধরিয়া নিত্য আরম্ভ হইত। তিনি তিনশত পয়ষট্রিদিন নাচিবার সময় একই গান করিতেন, তাহার দই পংক্তি মাত্র আমার মনে আছে “দগো দােগা বল ভাই, नशी दझे उान शऊि नाई।” মা প্রপিতামহদেবকে আমার ধম শিক্ষার দিকে দলিট রাখিবার জন্য অনরোধ করিয়াছিলেন, তাই তিনি আমাকে লইয়া প্রাতে নাচিতেন এবং প্রতি দিন সন্ধ্যাকালে সায়িংসন্ধ্যার পর কাপড় মাড়ি দিয়া নিজ শয্যাতে বসিয়া আমাকে কোলে লইয়া মখে মাখে ধম্যোপদেশ দিতেন, দেবতাদের সাতব প্রভৃতি শিখাইতেন, প্রশ্নেনাত্তরচ্ছলে অবশ্যজ্ঞাতব্য বিষয় সকল শিখাইতেন। যথা-“প্রপিতামহের নাম কি ?” প্রশন করিয়াই তদত্তরে বলিতেন, “বল, শ্ৰীীরামজয় ন্যায়ালঙ্কার।” আমি বাল্যস্বরে বলিতাম, “শ্ৰীীরামজয় ন্যায়ােলণ্ডকার,” ইত্যাদি। তৎপরে দেবদেবীর যে সকল সাতব মখস্থ আবত্তি করিতেন এবং আমাকে আবত্তি করাইতেন, তাহার সকলগলি মনে নাই। একটি মনে আছে, তাহা এই-- সব মঙ্গলা-মঙ্গল্যে, শিবে, সবাথসাধিকে, শরণ্যে, ত্র্যিাবকে, গৌরি, নারায়ণি, নমোহসন্তু তে। সে সময়কার আর একটি শেলাক আমার সমরণ আছে, তাহা মনে হইলে ক্ষোভমিশ্রিত বিস্ময়ের উদয় হয়। মনে হয়, অলপদিনের মধ্যে আমাদের গহে কি পরিবতনই ঘটিয়া গেল!! আমার প্রপিতামহ আমাকে অপরাপর প্রশেনর মধ্যে প্রশন করিতেন, “বাবা, তোমরা কোন জাতি ?” বলিয়াই বলিতেন, “বল, আমরা ব্রাহণ।” পরে প্রশন-“কোন শ্রেণীর ব্রাহণ ?” আবার উত্তর-“দক্ষিণাত্য বৈদিক শ্রে ব্রাহণ।” আবার প্রশন-“তোমরা কত দিন ব্রাহণ ?” উত্তর “যাবলেমরেী স্থিতা দেবা, যােবদ গঙ্গা মহীতলে, চন্দ্রাকোঁ গগনে যাবৎ, তাবন্বিপ্রকুলে বয়ম।” অর্থাৎ, দেবগণ যতদিন মেরাতে আছেন, গঙ্গা যতদিন পথিবীতে আছেন, চন্দ্র