পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আরম্ভ করিয়াছেন, তাঁহাকে ছাড়িয়া মহালক্ষমীর কাছে রাত্ৰিতেও আসিতে পারিতেছেন। না। এই সময়ে মহালক্ষীর কাছে থাকে কে ? তাহার মাতা কন্যার পািনবিবাহের BTeBDB DDDD BDDDBB DBB DDD DBDu uuBBD DDBBD S LDBDB DBBBDL হাসপাতালের নাইট ডিউটি উপস্থিত। তাই আমাকে টেলিগ্রাম করিয়াছেন। আমি আসিয়াই যোগেনের মাকে দেখিতে গেলাম, ও তাঁহাকে অনেক বঝাইলাম। তাঁহাকে বঝাইয়া ও যোগেনকে বলিয়া, যোগেনকে মহালক্ষীর নিকট রাত্রি যাপন BDBDuB BBD DBB DB BBD DD DBB BBB BBD DDD DDL DDDDBD আসিতে আরম্ভ করিলেন। কিন্তু আসিতে অনেক রাত্রি করিতেন। ঐ সময় আমি আহারালেত স্থল-স্থােন ঘরে বসিয়া তাঁহাকে বাংলা ও ইংরাজী পড়াইতাম এবং দজনে ধম বিষয়ে আলাপ ও উপাসনা করিতাম। এইরপে আমার গারতের শ্রম আরম্ভ হইল। যোগেন তাঁহার ভাগনহািদয়া মাতা ও আত্মীয়-স্বজনকে লইয়াই সব দা ব্যস্ত থাকিতেন, ঈশানেরও পাঠ ও নাইট ডিউটিার হাঙ্গামাতে অবসরাভাব হইল। এদিকে চাকর-চাকরানী নাই, সতরাং আমাকেই বাজার করা, তিন তলাতে কাঁধে করিয়া জল, তোলা প্রভৃতি সমাদয় গহকম করিতে হইত। এই সকল সমরণ করিয়া এখন আনন্দ হয়। এই সকল শ্রম করিতে আমার কিছই ক্লেশ হইত না, কারণ মহালক্ষীর বিমল ভালোবাসাতে আমাকে সরস রাখিত। মানষি মানষেকে এত ভালোবাসে না! যোগেনকে সর্বদাই আত্মীয়স্বজনের কাছে। যাইতে হইত, সতরাং আমিই তাহার সঙ্গী, তাহার শিক্ষক, সুয়াির, রান্নাঘরের চাকর, সকলই। আমি একদিন অনান্ত গেলে সে অশ্বির হইয়া ফলত, এই কালকে যে আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ কাল বলিয়াছি, তাহার কারণ এই। এই কালের মধ্যে আমার অন্তরে ধমভাব ও ব্যাকুলতা পণ্য মাত্রাতে কাজ করিতেছিল; অপর দিকে বন্ধদের প্রীতি ও শ্রদ্ধা পািণ মাত্রাতে ভোগ করিতেছিলাম। বস্তুত আমার প্রতি ঈশান ও যোগেনের প্রীতি শ্রদ্ধা বিশ্ববাস ও নিভরের 6यन नौभा छिव्न भा । লিখিতে লিখিতে একটা কথা মনে হইতেছে, তাহা ইহার অনেক পরের ঘটনা। তখন ঈশান বোধ হয়। লক্ষেী এর বলরামপার হাসপাতালে কম করিতেন। সেই সময় একবার ছটি লইয়া আসিয়া কলিকাতাতে ছিলেন। একদিন সন্ধ্যার পর আমি আসিতে দিলেন না। বলিলেন, “আমার পরিবার সম্পবন্ধে অনেক কথা আছে, তুমি থাক।” এই বলিয়া তাঁহার পত্নীর ত্রটির বিষয়ে আমার কানে অনেক কথা ঢালিলেন। বলিলেন, “আমি আমার স্ত্রীকে অনেক বঝাইয়াছি, কোনো ফল হয় নাই। তুমি একবার বাবাও।” আমি বলিলাম, “তোমার কথাতে কাজ হয় নাই, আমার কথাতে কি হবে ?” তিনি বলিলেন, “তোমাকে বড় ভালোবাসে ও শ্রদ্ধা করে, তোমার কথাতে ওর উপকার হতে পারে।” আমি অগত্যা ভূত্যের দ্বারা প্ৰসন্নময়ীকে সংবাদ দিয়া সে রাত্রি সেখানেই যাপন করিলাম। অনেকক্ষণ তাঁহার স্ত্রীর সহিত তাঁহাদের দাম্পত্য বিবাদ বিষয়ে কথাবাত কহিলাম। আমার কথার কি ফল হইল, জানি না, কিন্তু বন্ধদের এই অকৃত্রিম শ্রদ্ধা ও প্রীতির বিষয় যখন সমরণ করি, তখন ঈশবরকে ধন্যবাদ করি। কারণ, ইহাদের সদ্ভাব প্রীতির দবারা আমার হদয় মনের অনেক ७२कान श्नाछिल। a