পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সম্পাদকের নিবেদন এই গ্রন্থের প্রথম সংস্করণ ১৯১৮ সালের মধ্য ভাগে প্রকাশিত হয । প্রথম সংস্করণ মুদ্রিত হইবার পর গ্রন্থকার সে কয় মাস জীবিত ছিলেন, তাহার মধ্যে অনেক বার তঁহার সহিত কথা কহিয়া আমার মনে এইরূপ প্রতীতি হইয়াছিল যে, তঁহার শরীর একান্ত অপটু না হইলে তিনি পুস্তকখানির আদ্যোপান্ত সংস্কার সাধন করিতেন । তিনি ১৯১৯ সালের ৩০শে সেপ্টেম্বর দেহত্যাগ করেন । গ্রন্থকারের পুত্ৰ শ্ৰীযুক্ত প্রিয়নাথ ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয় ১৯২০ সালের প্ৰথম ভাগে আমাকে এই গ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণ সম্পাদনের ভার দেন । এই সূত্রে গ্রন্থকারের স্বহস্তলিখিত মূল পাণ্ডুলিপি ও তাহা হইতে নকল করা প্রথম সংস্করণের প্রেসের কাপি আমার হাতে আসিল। এই মূল পাণ্ডুলিপি ও প্রেমোর কাপি পরীক্ষা করিয়া প্রথম সংস্করণ সম্বন্ধে গ্রন্থকারের ঐ উক্তির হেতু বুঝিতে পারিলাম। প্ৰধান হেতু এই যে গ্ৰন্থকার তাহার সমগ্র রচনাটির শুঙ্খলা ও সঙ্গতি বিধানের ব্যবস্থা করিতে পারেন নাই। দেখিতে পাইলাম, গ্ৰন্থকারের মূল পাণ্ডুলিপি চারি খানি খাতায় লিখিত হইয়াছিল। তন্মধ্যে প্রথম উদ্যমের ধারাবাহিক রচনা ১৯০২ সালের ২৬শে মে তারিখে বালিগঞ্জ ৪১নপদ্মপুকুর রোড বাটীতে আরব্ধ, ও ১৯০৮ সালের ৫ই জুন তারিখে দাৰ্জিলিঙে সমাপ্ত হয়। তৎপরে নানা সময়ে, ঐ প্রথম রচনার স্থানে স্থানে অন্তর্নিবিষ্ট করিবার অভিপ্ৰায়ে অনেকগুলি নূতন বিবরণ লিখিত হয় ; এই নূতন বিবরণ গুলির পরিমাণ প্রায় প্রথম রচনারই সমান। তৎপরে দেখা গেল যে, অনেক স্থানে গ্ৰন্থকার এক বার একটি বিবরণ লিখিয়া, পরে 亲