পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৭০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


બાર 'ቘ শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত ' [ ১৫শ পরিঃ সে পুলিসে কাজ করে, সামান্য বেতন পায়, কোইম্বার্টুর সহরের সন্নিকটে এক ক্ষুদ্ৰ কুটীরে সপরিবারে বাস করে। । . এক দিন আমি তাহাকে বলিলাম, “তোমার বাড়ী কত দূর ? আমি তোমার ঘর ও স্ত্রী পুত্ৰ দেখিতে চাই।” - সে । আপনি রোজ প্ৰাতে আমার বাড়ীর নিকট রাস্তা দিয়া বেড়াইয়া থাকেন। আমি। বটে ? তবে কাল পথে দাড়িয়ে থেক, আমি আসবার সময় ডেকে নিয়ে । সে। আপনি সকালে বেড়িয়ে এসে দুধ খান, আমার বাড়ী গেলে আপনার খাবার বিলম্ব হবে। আমি । তুমি আমার জন্য একটু দুধ রেখ, আমি খেয়ে আসব, তাহলেই তা হবে। এ প্ৰস্তাবে সে আশ্চৰ্য্যান্বিত হইল। আমি তখন তাহার কারণ তত অনুভব করিতে পারিলাম না । এর পর দিন প্ৰাতে আমি বেড়াইয়া আসিবার সময় তার বাড়ীতে গেলাম। তারা উঠানে একটি মোড়া দিল, তাহাতে বসিলাম । তার স্ত্রী পুত্ৰকে দেখিলাম, অনেক প্রশ্ন করিলাম, বাঙ্গলা দেশের ও ব্ৰাহ্মসমাজের কথা অনেক বলিলাম। তারা দুধ ও ‘আপাম’ দিল, আমি খাইলাম। ফিরিয়া আসিয়া ঘরে বসিতে না বসিতে এই কথা সহরে ছড়াইয়া পড়িল যে, পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রী এক জন পঞ্চমার ঘরে গিয়া দুধ ও ‘আপাম খাইয়াছেন। সমাজের সভ্যগণ পিল পিল করিয়া আসিয়া উপস্থিত হইলেন, “হায় হায় । কি হ’ল, কি হ’ল !” আমি বলিলাম, “খাবার সময় এত কথা মনে হয় নি। আর, সে অনুরোধ করলেই বা কিরূপে অগ্ৰাহ করতাম ?” } । ইহার পর লোকে জানিল, আমি অন্য লোকের- অন্ন খাই । তার পর