পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৪৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভগিনী উন্মাদিনীর জন্ম R [ ومه-s۹ند শিশুকে মাটিতে শোয়াইতে নাই, প্ৰসুতিকে কোলে করিয়া বসিয়া থাকিতে হয়। মাটিতে শোয়াইলে জাতহরণীতে হরিয়া লইয়া যায়। তদনুসারে আমি যখন ছয় দিনের ছেলে, সেদিন রাত্রে মা ধাইয়ের সঙ্গে বন্দোবস্তু করিলেন যে অৰ্দ্ধেক রাত সে আমাকে কোলে করিয়া বসিয়া থাকিবে, আর অৰ্দ্ধেক রাত মা নিজে কোলে করিয়া বসিয়া থাকিবেন। তদনুসারে ধাই অৰ্দ্ধেক রাত্রি রহিল, পরে মারা পালা আসিল । মা কিয়ৎকাল বসিয়া নিদ্রাতে অভিভূত হইলেন। মনে করিলেন, শুইয়া ছেলে বুকের উপর শোয়াইয়া ঘুমাইবেন, মাটিতে না শোয়াইলেই হইল। এই ভাবিয়া আমাকে বুকের উপর শোয়াইয়া শয়ন করিলেন। নিদ্রাবস্থায় স্বপ্ন দেখিলেন, একটি রূপলাবণ্যসম্পন্ন নারী সুতিকাগৃহে প্ৰবেশ করিয়া হাসিতে হাসিতে ছেলেটি নিজ কোলে তুলিয়া লইয়া যাইবার উপক্ৰম করিল। মা ব্যস্ত হইয়া বলিলেন, “তুমি কে ? আমার খোকাকে কোথায় নিয়ে যাও ?” স্ত্রীলোক হাসিয়া বলিল, “বাঃ এ যে আমার খোক।” মা বলিলেন, “না, আমার খোকা ।” মেয়েটি বলিল, “না, আমার খোকা।” এই বিবাদে মারি ঘুম ভাঙ্গিয়া গেল। জাগিয়া দেখেন, আমি বুক হইতে সরিয়া পড়িয়াছি। এই স্বপ্নের কথা চিরদিন মার মনে জাগিয়া রহিয়াছিল। তঁহার বিশ্বাস ছিল, আমাকে জাতহরণীতে হরিয়াছে বলিয়া কুলধৰ্ম্ম ত্যাগ করিয়া ব্ৰাহ্ম হইয়াছি। মার মুখে যাহা শুনিয়াছি তাহাই লিখিলাম। ভগিনী উন্মদিনীর জন্ম।---আমার ছয় বৎসর বয়সের সময় আমার এক ভগিনী জন্মিল। সে দেখিতে অতি সুশ্ৰী হইয়াছিল বলিয়া বাবা কবিত্ব করিয়া তাহার নাম ‘উন্মাদিনী’ রাখিলেন। সে যখন পাঁচ ছয মাসের মেয়ে, তখন মা এক দিন তাহাকে প্ৰপিতামহদেবের সন্মুখে রাখিয়া, তাহার হাতখানি লইয়া উন্মাদিনীর উপরে রাখিলেন এবং চীৎকার করিয়া বলিলেন, “এই মেয়ে হয়েছে দেখ, পদধূলি দেও, আশীৰ্ব্বাদ কর”। প্রপিতামহদেব