পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৪৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


हे दि कांडेशन (oኳ”ዓ · [رنا چاہتلا - বিশেষ বিশেষ ব্যক্তির সহিত সাক্ষাৎকার। ই বি কাউয়েল -এই কেন্বিজ পরিদর্শন কালের আর একটি ঘটনা স্মরণ আছে। ঋষিপ্রতিম। ই বি কাউয়েল, যিনি এক সময়ে প্রেসিডেন্সি কলেজের প্রফেসর ও সংস্কৃত কলেজের প্রিন্সিপাল ছিলেন, যাহার সাধু চরিত্রের সংশ্রবে। আসিয়া প্রেসিডেন্সি কলেজের কতিপয় ছাত্ৰ খ্ৰীষ্ট ধৰ্ম্মে দীক্ষিত হয়, তিনি তখন সংস্কৃতের অধ্যাপক রূপে কেন্বিজে বাস করিতেছিলেন। অধ্যাপকতা করিবার জন্য তঁহাকে কলেজে যাইতে হইত না, কিন্তু সংস্কৃত শিক্ষার্থী ছাত্ৰগণ র্তাহার ভবনে আসিয়া পড়িয়া যাইত। সেই প্ৰবীণ মানুষ যখন শুনিলেন যে, ভারতবর্ষের এক জন নেতৃস্থানীয় লোক কেন্থিজের কলেজ সকল পরিদর্শন করিতে আসিয়াছেন, তখন সেই দুৰ্য্যোগের ভিতরেও, আমি যে বন্ধুর বাড়ীতে উঠিয়াছিলাম, তঁাহার ভবনে আসিয়া আমার সহিত সাক্ষাৎ করিলেন। আমি বাল্য কালে সংস্কৃত কলেজে পড়িবার সময় তঁহাকে আমাদের কলেজের অধ্যক্ষ রূপে দেখিয়াছিলাম, এবং কিরূপে তাহার সাধুতার দ্বারা মুগ্ধ হইয়াছিলাম, তাহার বিবরণ অগ্ৰেই দিয়াছি।” এখন দেখিলাম। সেই সাধু পুরুষ পালিতকেশ, স্থবির ; তাহার শুভ্ৰ শ্মশ্ৰজাল নাভিকে অতিক্ৰম করিয়া নামিয়াছে; চক্ষুদ্বয়ে ও মুখের আকৃতিতে গভীর জ্ঞানানুরাগ ও সাধুতার দেদীপ্যমান প্রমাণ রহিয়াছে। তঁহাকে আসিতে দেখিয়া আমি আশ্চৰ্য্যান্বিত হইয়া গেলাম। তঁহাকে বালক কালে কি দেখিয়াছিলাম, এবং তিনি আমার জীবনে সত্যানুরাগ কিরূপে উদ্দীপ্ত করিয়াছিলেন, তাহ যখন বলিলাম, এবং মিউটিনির হাঙ্গামা থামিলে নব বর্ষে পারিতোষিক বিতরণের সময় তিনি যে সংস্কৃত কবিতাটি রচনা করিয়া পাঠ করিয়াছিলেন তাহ যখন আবৃত্তি করিলাম, তখন তিনি বিস্ময় ও আনন্দে পূর্ণ হইয়া উঠিলেন, এবং কেবলমাত্র আমাকে বুকে জড়াইয়া কোলে লইতে বাকি রাখিলেন। তঁহার রচিত সেই কবিতাটি এই,-

  • ৬১-৬৩ পৃষ্ঠা দেখ।