পাতা:আত্মচরিত (৪র্থ সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


w8-au *ांधी cथिड उन्मनक्षकों We লাইলেন। নিকটবৰ্ত্তী এক পুষ্কবিণীব ঘাটে লইয়া অঙ্গুলির অগ্রভাগে কবিয়া তাব মুখে জল দিতে লাগিলেন। সুখেব বিষয। পাখীটি মবিল না । তিনি পথে'ব। একজন লোককে পাখাটি দিয়া গন্তব্যস্থানেব অভিমুখে চলিলেন । আমি পশ্চাৎ পশ্চাৎ চলিলাম । অ্যাব একদাৰ আমি পথে যাইতেছি, আমাব সম্মুখে আব-একজন লোক যাইতেছে । আমি দেখি৩ে পাতলাম, দূবে আমাদেব সম্মুখস্থ বাস্তার পার্থে একটি ছাগল বাধা বহিয়াছে। অমনি ঢ়িল ছুড়িবাব প্ৰবৃত্তি আসিল । বণি৩ে লজ্জা হইতেছে, ভোঁ কবিয এক ঢ়িল ছুড়িলাম। সে নির্বাপবাধ প্ৰাণী চাবতেছিল, আমাব ঢ়িল গিয়া বোধহয় তাব মাথায় লাগিল । বুঝতে পাবিলাম না, কেবল মাত্ৰ দেখিলাম, ছাগলটি একবার ভ্যা কবিষ, ডাকিয়া মাটী৩ে মুখ থুবড়াইয়া-খুবড়াইয়া পড়িতে লাগিল। ঐ দে খাষাই আমি পশ্চাৎ হইতে চম্পট । আব-এক পথ ধবিয়া পাড়া ঘুবিয়া কিছু পর্বে গিয়া দেখি, কয়েকজন লোক জুটিয়াছে, ছাগলটাকে শোয়াঈযা জল ঢালিয়া বঁাচাইতেছে , বোধ হইল ছাগলট মবিবে না। পাখী দেখতে তন্মানস্ক তা ।-তখন আমি যেমন পীপড়ার গতিবিধি লক্ষ্য কবিতাম, তেমনি পাখীব গতিবিধি লক্ষ্য কবিতেও ভালবাসিতাম। যদি দৈবাৎ উঠানে কোনও পাখী আসিত, তাহা হইলে আমি, মা খুড়া জেঠী যে কেহ সে সময় কথা কহিতেন, সকলোব মুখ চাপিয়া ধবিতাম, “চুপ কবি, চুপ কৰ, পাখী এসেছে।” একবাব পাখী দেখিতে গিয়া হাতীব পায়েব মধ্যে পড়িয়া গেলাম। তখন আমাদেব গ্রামে পোল্যবন্দী ইঞ্জিনীয়ার সাহেবেবী হাতী যাইত ; কারণ, বেল বা বাস্তা ঘাট ছিল না। একবাব আমি পাঠশালে বা স্কুলে যাইবার জুন্য বাহিব হইয়াছি; দপ্তৰুটী বগলে আছে ; এমন সময় হঠাৎ একটী সূতন বকমেব পাখী দেখিলাম, যাহা পূর্বে কখনও দেখি নাই। সে লেজ তুলিয়া চমৎকার শীল দিতেছে। আমি চিত্ৰাপিতের ন্যায় দাড়াইয়া