পাতা:আমার বাল্যকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


टाकाझुकूमात फ्रद्ध ইনি ছিলেন আমার সাহিত্যগুরু । ১৮৪৩ সালে তিনি তত্ত্ববোধিনী পত্রিকার সম্পাদকরূপে নিযুক্ত হন, সেই সময় থেকে আমাদের বাড়ী তার যাওয়া আসা । এই কাৰ্যে নিযুক্ত হওয়ার বিবরণ আমার পিতার আত্মচরিতে যা লেখা আছে তা এই ৪ “আমি ১৭৬৫ শকে তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা প্রচারের সঙ্কল্প করি । পত্রিকার একজন সম্পাদক নিয়োগ আবশ্যক। সভ্যদিগের মধ্যে অনেকেরই রচনা পরীক্ষা করিলাম। কিন্তু অক্ষয়কুমার দত্তের রচনা আমি তঁহাকে মনোনীত করিলাম। র্তাহার এই রচনাতে গুণ ও দোষ দুইই প্ৰত্যক্ষ করিলাম। গুণের কথা এই যে, তঁহার রচনা অতিশয় হৃদয়গ্ৰাহী ও মধুর। আর দোষ এই যে, ইহাতে তিনি জটাজুটমণ্ডিত ভস্মাচ্ছাদিতদেহ তরুতলবাসী সন্ন্যাসীরা প্ৰশংসা করিয়াছিলেন । কিন্তু চিকুধারী বহিঃসন্ন্যাস আমার মতবিরুদ্ধ। আমি মনে করিলাম, যদি মতামতের জন্য নিজে সতর্ক থাকি, তাহা হইলে ইহার দ্বারা অবশ্যই পত্রিকা সম্পাদনা করিতে পারিব । ফলতঃ তাহাই হইল। আমি অধিক বেতন দিয়া অক্ষয়বাবুকে ঐ কার্যে নিযুক্ত করিলাম। আমি তাহার ন্যায় লোককে পাইয়া তত্ত্ববোধিনী পত্রিকার আশানুরূপ উন্নতি করি। আমন রচনার সৌষ্ঠব তৎকালে অতি অল্প লোকেরই দেখিতাম । তখন কেবল কয়েকখানা ংবাদ পত্ৰই ছিল। তাহাতে লোক-হিতকর জ্ঞানগর্ভ কোন প্ৰবন্ধই প্ৰকাশিত হইত না। বঙ্গদেশে তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় সর্বপ্ৰথমে সে অভাব পূরণ করে।” wygrt3 grt i Standing desk fyz i kas মধ্যে পদচারণা করতেন আর দাড়িয়ে দাড়িয়ে পত্রিকার জন্য প্ৰবন্ধ লিখতেন- ‘ব্ৰহ্মাণ্ড কি প্ৰকাণ্ড ব্যাপার।” سنس