পাতা:আমি শুধু একা - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


এবারের মত ছেড়ে দিলাম, আর যেন এসব কথা না শুনি । যাও চা নিয়ে এসে। সাবিত্রী একটু বিব্রত বোধ করে। সাবিত্রীর এই চা আনার কাজটা বিশ্ৰী লাগে। রাস্তার ওদিকের চায়ের দোকানে এই এলাকার কিছু ছেলের দল আডুডা জমায় সৰ্ব্বক্ষণ। তাদের দু’-একজন ওকে কেন্টলি হাতে চায়ের জন্য গিয়ে দাঁড়ালে মন্তব্য করে জোর গলায়। —-কমণ্ডলু হাতে যোগিনীর প্রবেশ। দাও গুপীদা, অমৃত দাও এবার। সাহসী দু’-একজন সরাসরিই শুধোয় সাবিত্রীকে একটু কাছে এসে। ——এখানে কতো করে মাইনে পাও, ওই সেলাই গান-ফানের ইস্কুলে ? সাবিস্ত্রী ওদের এড়াবার চেষ্টা করেছিল প্রথম দিকে। দোকানে পয়সা দিয়ে চা নিয়ে চলে এসেছে ওদের কথার জবাব না দিয়ে। যেন শুনতেই পায় নি। ওদের কথা । ছেলেদের কে বলে-বোবা-টোবা নয়তে র্যা ? &{3ाक (*न्{2 } SumitaBot (আলাপ)হাবা-গোবা ? চোক দেখছিস না ? যেন চাকু মারতে আসছে। লাটখান মন্দ লয় ] ছেলেরাও দোকানে ওর জন্য ওৎ rপতে থাকতো। সাবিত্রীর ভালো লাগতো না চা আনতে যেতে, এখানেও কিছু বলতে পারতো না। ক্রমশ ছেলেদের গানও বের হতো। ওকে দেখলে । কে বলে একদিন ওকে !


কতো দিন পথ চেয়ে থাকবো মাইরী ?

সাবিত্রীও রুখে দাঁড়িয়েছিল ওদের ওই কথায়! তীক্ষ্ণ স্বরে প্রশ্ন করে সাবিত্রী ছেলেটিকে । —কি বললেন ? আপনার না ভদ্রঘরের লেখাপড়া জানা ছেলে। একজন মেয়ের সম্বন্ধে এই সর বাজে কথা বলতে এতটুকু বাধে না ? ছেলেটাও বাধা পেয়ে হ'কচাকিয়ে গেছে, ও ভাবে নি। সাবিত্রী এমনিভাবে প্রতিবাদ করবে। { সরে গিয়েছিল সে। সবিস্ত্রীও চলে আসে। তবু খারাপ লাগে নি তার। কিছু ছেলের মনেও সাড়া তুলেছে সে। ছেলের দল বলে । 8S