পাতা:আমি শুধু একা - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কিন্তু সুধাময়ীর সে স্বপ্ন সার্থক হয় নি। আজও এই অন্ধকারে পড়ে আছে আর মুখ বুজে সইছে এদের নানান কথা। লতিকা বেড়িয়ে ফিরছে, নিতাই-এর মা যেন পথ চেয়েই ছিল। লতিকাকে দেখে নিতাই-এর মা আপন মনে গজগজ করে ওপাশের বারান্দায়। --মুখের লাগাম নেই বাছা। বয়স তোরও কম হল না। তুইও সোমািত্ত ছেলেমেয়ে নিয়ে ঘর করিস, তাই বলে আর কারো সখ-আহ্রদ থাকতে নেই? সেজে-গুজে বেড়াতে বের হবার এই তো বয়েস। --কি হল পিসী? লতিকা নিতাই-এর মাকেই শুধোেল। নিতাই-এর মা ওকে বলবার জন্য বসেছিল। এবার নিতাই-এর মা বলে ওঠে। —ওসব বাজে কথায় কান দিও না বাছা, ওই অমুর মায়ের কথা বলছিলামগলা নামিয়ে বলে নিতাই-এর মা। —বলে কি না তুমি নাকি পার্কে কোন ছোকরার সঙ্গে বসে হাসােহাসি করো। শোনো কথা ? লতিকাও জুলে ওঠে এসব শুনে। বিপদে-আপদে দায়ে-আদায়ে আমুর মাকে সাহায্য করে, আর সে কিনা। এইসব কথা বলবে? লতিকার এই পরিবর্তনটা দেখে নিতাইয়ের २ (द्वन् (द्ध्ळ ! —তুমি বাছা বলো না যে, আমিই বলেছি। কতো করো ওদের তা জানি। আমুর চাকরী করে দেয় নি। কিনা মহীমবাবু তাই এসব তো বলবেই। কলিকাল বাছা। লতিকা নীরব রাগে গুমরে ওঠে। নিতাই-এর মা এসব কথার যেন কোন গুরুত্বই দেয় নি, এমনি ভাব দেখিয়ে আবার বড়ি দিতে থাকে। নিতাই কোন দোকানে কাজ করে, ওর মা অবসর সময় বড়ি দিয়ে দোকানে বিক্ৰী করে। তাতে দু’পয়সা আয় হয়। সুধাময়ী ময়দা মাখছে। উনুনের আঁচে কি একটা তরকারী চাপিয়েছে। বসন্তবাবুও এখনও ফেরেননি। অন্যদিন বাড়ি থেকে গলির মোড়ে। টুইশানি করতে যান, আজ বোধহয় কি কাজে আটকে পড়েছেন। সাবিত্রীও ফেরে নি-অশোকের অবশ্য ফেরার কোনো সময় নেই। অমৃত ছাত্র পড়াতে গেছে। 企しア