পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/১০১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আটলান্টা ম্যাক পরিচারিকাকে জিজ্ঞাসা করে জানতে পারল, এক রুমে থাকা আর তিন রুমে থাকা একই কথা। ষাট সেন্ট দিতে হবেই। উপায়ান্তর দেখে ম্যাক মধ্যের রুমটা বেছে নিল। | উইলী ধূর্ত লােক, সে ম্যাককে মধ্যের রুমে থাকতে দিল না। পাশের রুমে থাকতে বলল এবং মধ্যের রুমে নিজে থাকবে বলল। ম্যাকের এখানে বলার মত কিছুই ছিল না। পাশের রুমেই প্রবেশ করল। উইলী স্নান করতে গেল এব ম্যাককেও মান করবার জন্য প্রস্তুত হতে বলল। ম্যাক এবং এনী জীবনে কখনও টাবে স্নান করেনি। উইলীর স্নান হয়ে গেল এন্তনী এবং ম্যাককে স্নান করতে আদেশ করল এবং কি করে স্নান করতে হয় বলে দিল। এদের শরীর হতে এত ময়লা বের হয়েছিল যে উইলী সামনে থেকে টাব পরিষ্কার করিয়ে তারপর বাথ রুমের দরজা খুলেছিল। স্নানের পর এন্তনী এবং ম্যাকের চেহারা খুলে গেল। কঁাচা : সােনার মত রং বেরিয়ে পড়ল। এদের শরীরের রং এবং সুন্দর গঠন দেখে এন্তনী ভাবলে, এমন সুন্দর চেহারা এরা কোথা হতে পেল? স্নানের পর ভােজন, তারপরই নিদ্রা। শরীর প্রত্যেকেরই দুর্বল হয়েছিল। ম্যাক এবং এন্তনী মরার মত ঘুমােচ্ছিল। উইলী ইচ্ছা করেই ঘুমালে না। সে এক পেয়ালা কড়া কাফি খেয়ে সহরে বেড়িয়ে পড়ল। উদ্দেশ্য একটি প্রেসের সন্ধান করা। উচু নীচু সহর, উইলীর হাঁটতে খুব কষ্ট হচ্ছিল। কয়েকজন লােকের সঙ্গে উইলীর পরিচয় ছিল। তাদের কাছে প্রেসের সন্ধান চাওয়াতে প্রত্যেকেই বলছিল, “প্রেস দিয়ে আর কি হবে, প্রেসের সংবাদ শুধু আমরাই জানব, বিদেশে ত আমাদের কথা পৌছবে না। PL ।