পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/২৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


: আমেরিকার নিগ্রো বােঝা বয়ে নিয়ে চলছিলাম, এবার রক্ত দেবার সময় হয়েছে। আমি শুধু রক্তই দিয়ে যাব, তার সুফল চাই না। নূতন যে সকল নবাগত নিগ্রো ভাই বােনরা আসছে, তাঁরা আমার কাজের সুফল ভােগ করবে। কোনরূপ দ্বিধা না করে এতনীর পেছন চলছিলাম। হঠাৎ একটা শ্বেতকায়কে দেখে মনে হল যেন একটা শয়তান আসছে। শ্বেতকায় এতনীর পরিচিত লোক। কাছে এসেই সে এতনীর করমদন করল। আমি কে জিজ্ঞাসা করল? এনী আমার পরিচয় দিল। শ্বেতকায় আমার দিকে তার হাত বেড়িয়ে দিল। কি করব ভেবে পাচ্ছিলাম না। শ্বেতকায়ের পদসেবা করতে শিখেছিলাম, কিন্তু করমদন কখন করিনি। আমি কিছুই করছিনা দেখে শ্বেতকায় তামার হাতটা নিজেই ধরল এবং করমন করে বললে, "কেমন আছ ম্যাক?” “ভাল আছি বস যখন বললাম, তখন শ্বেতকায় বললে, ‘ভবিষ্যতে আমাকে ‘বস’ কখনাে বলবেনা ম্যাক, যদিও আমি খেতকায় তবুও আমি তােমাদের বন্ধু-প্রভু নই। বিদায় ম্যাক, পরে দেখা হবে। পাহাড় ক্রমেই খাড়ি বােধ হচ্ছিল। আমাদের ঘরের পেছনে এত বড় পাহাড় রয়েছে সে ধারণা আমার ছিল না। পেছনের দরজা দিয়ে যখন পাহাড়টাকে দেখতাম তখন মনে হত এই ত পাহাড়, ইচ্ছা করলেই উঠানামা করা যায়। পাহাড়ের উপরে সব সময়েই বরফ থাকত, যখন বরফ নীচের দিকে নেমে আসত তখন শীত বেশি অনুভব করতাম। এর বেশি পাহাড় সম্বন্ধে অন্য কোনাে ধারণাই ছিলনা। মাথা নীচু করে যখন উপরের দিকে উঠছিলাম তখন মনে হচ্ছিল এন্তনী পাহাড় সম্বন্ধে এত সংবাদ কি করে রাখল এবং আমি কেন রাখলাম না, এর নিশ্চয়ই কোন কারণ আছে। কারণ খুঁজে বের - - - । ।