পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মনুষ্যত্ব লাভ ২৭ তিন চার দিনের মধ্যে শেষ করতে পারবে, তারপর কি করে কাজ করতে হবে তার উপায় উদ্ভাবন করে অগ্রসর হয়ে। সন্ধ্যা হয়ে গেছে। ব্যাক ডােৰু হিলের সাদা চূড়ার ওপর সূর্যের শেষ কিরণ পড়ে তখনও প্রজ্বলিত আগুনের শিখার মতই দেখাচ্ছিল। এদৃশ্য জ্ঞান হবার পর থেকেই দেখে আসছি, কিন্তু আজ আমার কাছে সেই দৃশ্য নূতন বলেই মনে হচ্ছে। অনেকক্ষণ দেখলাম সে দৃশ্য। তারপর যখন দেখবার মত কিছুই থাকল না তখন ঘরের মধ্যে প্রবেশ করব ভাবছি, এমনি সময় রুটিওয়ালা পারেয়ারী জুফ্রে আমার হাত ধরে টানল। তার হাত টানার রকম দেখে মনে হল, আমার শরীরটা যেন একটি কাঠের পুতুল এবং সেই কাঠের পুতুলের মালিক জুফ্রে। জুফ্রেকে জিজ্ঞাসা করলাম, ঘরে বসে কথা বলবে না বাইরে পঁড়িয়ে কথা বলবে? জুফ্রে বাঁ হাতের রুটির বাণ্ডিলটা ডান হাতে নিয়ে আমার হাতে দিয়ে বললে, এটা তােমাকে আমি দিচ্ছি। যখন পার দাম দিয়ে এস। দশ সেন্ট হল ঠিক ঠিক দাম, তােমাকে ন সেন্টে দিচ্ছি। হা আর একটি কথা, আমাদের নানারূপ বদনাম আছে সে কথা বােধহয় জান, মনে সে রকম কোন ধারণা পােষণ করো না। তবে সস্তা রুটি দেবার পেছনে একটি উদ্দেশ্য আছে। আমি দয়াল নই। দয়া করা এসব আমার ধাতে নেই। তােমাকে দিয়ে একটি কাজ করিয়ে নেবার মতলব আছে। সেই কাজ এখন করতে হবে না, ভবিষ্যতে করবে এবং আমি তােমাকে দিয়ে করাব। জর্জ ওয়াশিংটন যদি ফরাসীদের সাহায্য না পেতেন তবে আমেরিকা এখনও বৃটিশ কলােনীই থাকত। তােমরা হয়ত এখনও কেনা গােলামের বাচ্চা হয়েই থাকতে। আমি তােমাকে দিয়ে যে কাজ করা সে কাজ সেই ধরণের। এখন ঘরে যাও। .