পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১/ উইলী দিকে রওয়ানা হল। অষ্টম এ্যাভিনিউতে বিদেশীদের জন্য একটি বিশেষ রেস্তোর। ছিল। সেখানে সে গেল। ভয় হচ্ছিল যদি কোনও পুলিশ তাকে বিদেশী মনে করে গ্রেপ্তার করে তবেই ফেসাদ। যদিও ডাকাত দলের সুনজরে এসে যাবে বটে, কিন্তু ডিপাের্টেশনের ভয় থাকার কোন কারণ নেই। বিদেশী অধ্যুষিত রেস্তোরায় অনেক লােক বসেছিল। লােকে বিভিন্ন ভাষায় কথা বলছিল। যে কয়েকজন বৃটন বসেছিল। তাদের কাছেই উইলী বসল এবং একজনকে উপযাচক হয়ে জিজ্ঞাসা করল, এ বেশটা কেমন লাগছে বন্ধু? বেশ ভাল। বৃটনরা যতই বােকা হােক, মনের কথা সহজে প্রকাশ করে না। “বেশ ভাল” এর বেশি বলার মত কিছুই ছিল না। উইলী দেখল এদের কাছ থেকে কোনরূপ কথা বের করা সহজ হবে না। পাশের টেবিলে কয়েকজন ইণ্ডিয়ান্ বসে ছিল। তারা তাদের সুখ দুঃখের কথা বলছিল। ভিন্ন ভিন্ন জাহাজের নাবিক তারা। নিউইয়র্কে দেখা হয়েছে। বম্বের নাবিক ইংলিশে মাদ্রাজী নাবিকের কাছে আমেরিকার প্রশংসা করছিল এবং বলছিল, “যদি কোন সুযােগ পেতাম তবে এদেশেই থেকে যেতাম।” সুযােগ বলতে কি মনে কর? এই কাজকর্মের সুবিধা, এদেশে থাকতে হলে অর্থের দরকার। ডলার না থাকলে শুধু এদেশের চাকচিক্যে ত পেট ভরবে না। পকেটে ডলার ছিল বলেই এখানে বসতে পেরেছি, তােমার সংগে কথা বলবার যােগ হয়েছে। কাজের সন্ধান না করে এদেশে কোন মতেই থাকা যায় না। মাদ্ৰাজী লােকটি কি ভাবছিল। তার কালাে মুখে পাংসুটে রং-এর