পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/৭০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমেরিকার নিগ্রো কালিমা ছড়িয়ে পড়ছিল। কফির পেয়ালা সরিয়ে দিয়ে বম্বের লােকটির আরও কাছে এসে বললে—ভয় কিসের চল দুজনাতে থেকে যাই। বম্বের লােকটির মন তখন কি রকম করছিল। তার বুকটা নড়ে উঠেছিল। অনেকক্ষণ ভাবল তারপর বললে, “আচ্ছা তাই হবে, কিন্তু মনটা এখনও স্থির করতে পারছি না। একটু চিন্তা করে দেখি। তুমি এখন জাহাজে যেয়ো না। উইলী ওদের কথা শুনছিল। উইলীকে এরা পর্তুগীজ মনে করে ••••..কথা বলতে ভয় পাচ্ছিল না। এদের কথা শুনে উইলী মান্দ্রাজী লােকটিকে জিজ্ঞাসা করল, “তােমরা এদেশে থাকতে চাও কেন, তোমাদের দেশে কি এরূপ সুন্দর সহর নেই ?” মান্দ্রাজী নাবিক থতমত খেয়ে বললে, “সবই আছে কিন্তু টাকা নেই।” তােমাদের মধ্যে সাদায় কালােয় পার্থক বম্বের লােকটিকে দেখিয়ে বললে, “একে দেখে তোমার কি মনে হয়?” ব্রাউন। আমাদের দেশে রংএর পার্থক্য নেই। সাদা, কালো, বাদামী হলদে সবাই সমান। টাকার পার্থক্য এবং ধর্মের পার্থক্য রয়েছে মাত্র। | উইলী এদের আর কোন কথা জিজ্ঞাসা না করেই রেস্তোরাঁ হতে বেরিয়ে পড়ল। সে চিন্তিত মনে নিজের রেস্তোরাঁর দিকে রওয়ানা হল। পৃথিবীর সর্বত্রই সমস্যা। সব সমস্যার মিমাংসা কোথায় কি করে হয়েছে সে কথাই ভাবতে ছিল। রেস্তোরায় ফিরে এসে নিজের রুমে প্রবেশ করল। সেখানে