পাতা:আয়ুর্ব্বেদ সারসংগ্রহম্‌ - তৃতীয় ভাগ.pdf/৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আয়ুৰ্ব্বেদ সারসংগ্ৰহম্। S 4 করিলে রোগী বিনাশকে প্রণ গু হয় । যাহার শরীরেক্তে অগ্নি বল বীৰ্য্য পরিপূর্ণ অাছে তাহার প্রতি পূর্ণমাত্রা প্রয়োগ করিবে । যাহাতে মধ্যম অগ্নি বল বীৰ্য্য আছে তাহার প্রতি মধ্যম মাত্র প্রয়োগ কব্রিবে। যtহাতে অগ্নি বল বীর্য হীন হইয়াছে অর্থাৎ অত্যন্ত কম হইয়াছে, তাহার প্রতি পাচনের বা ঔষধের মাত্রা অত্যন্ত হীন করিয়া প্রয়োগ করিবে, ইহা পণ্ডিত মহাশয়েরা কহেন। হে বৎস ! তোমাকে আমি কি আর বেসি কহিব, মাত্রাই জীবের প্রাণ দান করে মাত্রাজ্ঞান রহিত যে ব্যক্তি হন, তিনিই প্রাণের নাশকৰ্ত্ত হয়েন। ২০ প্রকারান্তরে অতিসারের লক্ষণ ও প্রতীকীর । সশূলং বহুশঃ কৃচ্ছ দ্বিবন্ধং যোতিসাৰ্য্যতে । দোষান্‌ সন্নিচিতা বাথ পথ্যাভিঃ সংপ্রবর্তয়েৎ ॥ ২১ ষে ব্যক্তি শূলের সহিত অর্থাৎ পেট বেদনার সহিত কষ্টেতে অনেকবার বিবন্ধ অর্থাৎ অলপ অলপ ভাষাতে এক্টু একটু অতিসার করে অত্যন্ত বদ্ধ বাতাদিকে হরিতকী সমুহ দ্বারা প্ৰবৰ্ত্ত করাইবে অর্থাৎ বহিষ্কার করাইবে । ২১ প্রকারান্তরে অতিসার লক্ষণ ও প্রতীকার । যোতি দ্রবং প্রভুতঞ্চ পুরীষমতি সাৰ্য্যতে। তস্যাদে বমনং কুৰ্য্যাৎ পশ্চাল্লঙ্ঘন পাচনং || ২২