প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৩৯৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| 9bペ বস্ত্রাভ্যন্তর হইতে ছুরিকা বড়িঙ্করণ পূৰ্ব্বক উন্মাদিনীর নায় বলিতে লাগিলেন-- “ছোরা! তুমিই এ বিপদে আমার সহায়! দুৱাত্মা চারিদিক বন্ধ করেছে, কিন্তু তোমাৰ কিছুই করতে পারে নাই ; তুমি যবনের কোষে ছিলে বটে, বিস্তু তুমি এক্ষণে আমার পরম বন্ধু ! হায় তোমাকে যখন পাই তখনই যদি কণ্ঠের আভরণ করি, তা হলে আর নাথের এ বিপত্তি দেখতে হতো না ; তা হয় নাই, নাথের কষ্ট দেখা এ রাক্ষসীর ললাটের লিথন, এখন আমি আশরণা, তোমার শরণাগত হলেম।” রাজপুত্রীর কান্তরোক্তিতে বিন্দুমাত্রও বিচলিত না হইয়া নরাধম পুষ্পকেতু “ রাজপুত্ৰি ! তোমার সকল দুঃখের নিদান পৃথকে ঘোর নরকে নিক্ষেপ করি।” এই বলিয়া ভারতের শেষ স্বর্য, পৃথুর স্বন্ধে খড় গ প্রহার করিল। ভারতসমূট “জীবিতেশ্বরি । —”এই শেষ বাক্য উচ্চারণ করিয়াই রুদ্ধবাক হইয়া ভূতলে পতিত হইলেন। তাহার সহিত ভারতের মুখসূর্যাও অস্তমিত হইল! নরাধম পুষ্পকেন্তু অনঙ্গমঞ্জরীর সমক্ষেই এই লোমহর্ষণ ব্যাপার সম্পাদন করিয়াই দ্বার মেচনান্তে রাজপুত্রীকে বলিল “রাজপুত্র! এখন তুমি কার?” অনঙ্গমঞ্জরী আর থাকিতে না পারিয়া— “নিষ্ঠুৰ! নিশাচর ; পিশাচ । নৱকাক! এখন আমি অনাথ ! যদি আমায় চাস, তবে আগে এই দূতীকে রুধিব দানে সন্তুষ্ট কর ?” এই বলিয়া পুষ্পকেতুর উদরে o m


. ایم --------- ===-------

আর্ম্যদর্শন । অগ্রহায়ণ ১২৮৯ | বেগে ছুরিকাঘাত করিলেন । এই আঘা- | তেই সেই নরপিশাচের মৃত্যু হইল । অনঙ্গমঞ্জরী —“নাথ! প্রাণনাথ ! জীবিতেশ্বর ! যে উদ্দেশে এ দাসী জীবন { তা সিদ্ধ হয়েছে ; } যবনের ভয় না\থাকলে দুরাত্মার উষ্ণ শোণিতে তোমার তর্পণ করতাম তা পারলাম না। তোমার ঔরস সন্তানকে এই রক্ত পান করাই—” এই বলিয়াই স্বীয় উদরে অস্ত্র নিখাত করিলেন এবং “মাগো ! বাধা গো ! তোমাদের অনঙ্গ জন্মের মত চলল” এই বলিয়া পতিত হষ্টলেন এবং পৃথুর মৃত দেহের নিকটে গমন ও বাহু দ্বারা তদ্বেষ্টন পূৰ্ব্বক 'প্রাণনাথ ! জীবিতে ধর । দাদী তোমারই”এই বলিয়া জন্মের মত নীরব হইলেন । ভারতের রাজলক্ষ্মী ও র্তাহার সহিত অন্তধর্ণন করিলেন । # এই দুঃখাস্ত নাটকখানি যে এক থানি উৎকৃষ্ট কাব্য তাহা এই উপাখ্যান ভাগ ও উদ্ধত অংশ গুলি পাঠ করিলেই পাঠক গণ বুঝিতে পরিবেন। কিন্তু এখানি উৎকৃষ্ট কাব্য হইলেও গল্পের জটিলতা, ভাষার অবৈষম্য, ও কল্পনার অতিবিস্তৃতি হেতু অভিনয়ের উপযোগী নহে। সুতরাং কাব্যাংশে উৎকৃষ্ট হইলেও ইহাকে আমরা উৎকৃষ্ট নাটক বলিতে পারিলাম না। । ভারতবিজয় অসম্পূর্ণ বলিয়া ইহার বিষয়ে এক্ষণে আমরা অধিক বললাম না। তবে আপাততঃ এই মাত্র বলিতে পারি যে এখানি সম্পূর্ণ হইলে এক খানি মন্দ এতক্ষণ নাটক হইবে না । =