পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (তৃতীয় বর্ষ).pdf/২০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জীবন-বৈচিত্ৰ্য । by | אכס\ל לוף)}ש একএকজন স্ত্রীলোকের মুখ দেখিলে তাহদের সকল দোষ ভুলিয়া যাইতে दश् । সুন্দরী যখন নিজের ওকালতী নিজে করেন তখন তঁাহার প্রতিপক্ষ উকীল কোথায় পাইবে ? সুন্দরীর হাসি-মুখ। যেমন প্রস্ফুটিত কমলের শোভা ধারণ করে সেইরূপ তাহার অশ্রুসিক্ত মুখমণ্ডলও শিশির-স্মাত গোলাপের ন্যায় মনোহর। শৈবালানুবিদ্ধ সরসিজের ন্যায় স্বভাবসুন্দর মুখে কালিমা পড়িলেও উহাতে এক বিচিত্র রমণীয়তা লক্ষিত হয়। এক একখানি মুখের স্বৰ্গীয় প্ৰভায় ছায়াময় স্থানও আলোকাকীর্ণ বোধ হয়। স্বাভাবিক সৌন্দৰ্য্য বেশভূষার অপেক্ষা করে না, বরং বেশভূষার আধিক্যে উহা আবৃত হয়। এরূপ সৌন্দৰ্য্য আভারণের আভরণ, সঙ্গার সজ্জা এবং উপমানের প্রত্যুপমান ; “অ্যাভারণস্যাভারণং প্রসাধনীবিধেঃ প্ৰসাধনবিশেষঃ । উপমানস্যাপি সাথে ! প্রতুপমানং বপুস্তস্যাঃ ॥” একখানি ইংরাজী নাটকে বৰ্ণিত আছে যে, একজন ধনাঢ্য ডিউকের সুন্দরী সহ দৰ্ম্মিণী নাচের মজলিসে নিমন্ত্রিত হইয়া কি পোষাক পরিবেন তদ্বিযয়ে স্বামীর অভিপ্রায় জিজ্ঞাসা করিয়াছিলেন। ডিউক তাহাতে উত্তর দিলেন :-“আমার ইচ্ছ। তুমি একটি শুভ্ৰবর্ণের দীন পরিচ্ছদ পরিধান কর । শিরোভূষণ স্বরূপ একটি মাত্ৰ অৰ্দ্ধপ্রহ্মটিত গোলাপের কুঁড়ি তোমার কবরীতে আবদ্ধ করা । তোমার হীরা মুক্ত। পরিবার কোনও প্রয়োজন দেখি না ; তোমার নয়নযুগলে যে হীরক জ্বলিতেছে, দন্তচ্ছদে যে পদ্মরাগমণি আছে এবং তদভ্যন্তরে যে মুক্ত পঙক্তি বিরাজ করিতেছে তা হাই যথেষ্ট । যখন তোমার সুগঠিত দেহলত সঙ্গীতের তালে তালে ইতস্ততঃ সঞ্চারণ করিবে: এবং তোমার অলকাদাম বাতাসে দুলিবে তখন তোমার রূপ যেরূপ দৃষ্টি আকৰ্ষণ করিবে তদপেক্ষা অধিক আকষণ বাঞ্চনীয় নহে। স্ত্রী যেরূপ বেশতৃষা করিলে স্বামীর নয়নানন্দদায়িনী হয়েন তাহার পক্ষে সেইরূপ বেশভূষাই যথেষ্ট।” বাস্তবিক বিধাতৃদত্ত অলঙ্কারের কাছে অন্য অলঙ্কার অতি অকিঞ্চিৎকর বলিয়া বোধ হয় । এক একজন রূপসী নিজের রূপের কথা স্বপ্নেও ভাবেন না, অথচ তঁাহারা সাক্ষাৎ রূপের অবতার স্বরূপ। আমি বহু বৎসর পূর্বে এইরূপ অসামান্য রূপলাবণ্যবতী একটি দ্বাদশবর্ষীয়া বালিকাকে দেখিয়াছিলাম। যদিও তাহাকে OB BDBBBD KDS LDDDD DDy DBDD DBDD BDD DDDD SBLtDS