পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/১৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


See আৰ্য্যাবৰ্ত্ত । ১ম বর্ষ-৩য় সংখ্যা । emsmus . এই সময় একটা অতর্কিত উপসর্গ উপস্থিত হইল। মহিমচন্দ্রের বাড়ীর ঠিক পার্শ্বের বাড়ীতে একজন নূতন ভাড়াটিয়া আসিলেন । মহিমচন্দ্রের গৃহে যে কক্ষে ব্ৰজেন্দু থাকিত-পাশ্ববত্তী গৃহের যে কক্ষটি তাহার সন্মুখীন সেই কক্ষ একটি কিশোরী কর্তৃক অধিকৃত হইল। দুই কক্ষের মধ্যে দুইটি অলিন্দমাত্র বাবধান । ব্ৰজেন্দু স্বাভাবিক ভদ্রতাহেতু সে কক্ষের দিকে চাহিত না ; কিন্তু সময় সময় কিশোরীর মূৰ্ত্তি যে তাহার নয়ন-পথের পথিক হইত না, এমন নহে। আর তাহার কক্ষে বসিয়া ব্ৰজেন্দু শুনিতে পাইত, কিশোরী একাকী বিশুদ্ধ উচ্চারণে ‘রঘুবংশ’ বা ‘কুমার-সম্ভব”, “রামায়ণ’ বা “শকুন্তলা’ পাঠ করতেছে ; তাহার সুমধুর কণ্ঠস্বর যেন সেই সকল রচনায় নবীন জীবন সঞ্চার করিতেছে। কথন বা সে শুনিত কিশোরী ইংরাজ শিক্ষয়িত্রীর নিকট টেনিসনের কবিতা পাঠ <fogg :- "Woman is the lesser man, and all thy passions, match'd with mine, Areas moonlight unto sunlight, and as water unto wihe."- নারী কিন্তু পুরুষের তুল্য নাহি হয় ; মোর বৃত্তি তুলনায় তব বৃত্তিচয়দিবাকর দুতি আর চাদের কিরণ, অথবা মদিরা আর সলিল যে, মন । অধ্যয়নে অসাধারণ অনুরাগ ব্ৰজেন্দুকে কিশোরীর প্রতি আকৃষ্ট করিয়াছিল। সেই অধ্যয়ন-অনুরাগ ব্ৰজেদুর নিকট অপরিচিতাকে অপূর্ব লাবণে শোভিত করিয়া তুলিয়াছিল। ব্ৰজেন্দুৱ কল্পনা তাহাতে সকল গুণের আরোপ করিত। ব্ৰজেন্দু সরলভাবে শ্রদ্ধা প্ৰকাশ করিতে শিখিয়াছিল—মনের ভাব গোপন করিতে শিখে নাই। বিশেয এই কিশোরীর অধ্যয়ন-স্পৃহার প্রশংসায় যে কেহ আর কোন ভাবের আরোপ করিতে পারে, সে তাহা মনেও করিতে পারে নাই। সে সুরমার নিকট কিশোরীর প্রশংসা করিত। দুইচারিদিন ভ্রাতার মুখে কিশোরীর প্রশংসা শুনিয়া সুরমা একদিন স্বামীকে সে কথা বলিল । মহিমচন্দ্ৰ পুনঃ পুনঃ প্রশ্ন করিয়া পত্নীর নিকট ব্ৰজেন্দুর এই প্ৰশংসার বিষয় সব অবগত হইলেন। র্তাহার মুখ গম্ভীর হইল। তিনি বলিলেন “লক্ষণ ভাল নহে ।”