পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/১৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Vatiş, "»vo» 6द2ा ܘܼ ইসমাইল বেগের সহিত পুনঃ প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করিয়া আবার সম্রাটের উপর অত্যাচার আরম্ভ করে। তখন তাহাদিগের সৈন্যসংখ্যার আধিক্যহেতু বেগম আর সম্রাটকে রক্ষা করিতে পারেন নাই । f ইহার পর চার বৎসর বেগমের কোন সংবাদ পাওয়া যায় না। ১৭৯২ খৃষ্টাব্দে বেগমের সেনানায়ক টমাস র্তাহার কাৰ্য্য ত্যাগ করেন এবং তৎপদাভিষিক্ত লুভাসুলত নামক জনৈক ফরাসী বেগমের পাণিগ্রহণ করেন। এই বিবাহ গোপনে রোমান ক্যাথলিক মতে সম্পন্ন হয়। বিবাহ গোপনে নিম্পন্ন করা যে অত্যন্ত অবিবেচনার কাৰ্য হইয়াছিল, তাহা পরে দেখা যাইবে। তবে লুভাসুলত স্বীয় সৈন্যদলের বাৰ্ণিয়ার ও সালুর নামক দুইজন কৰ্ম্মচারীকে সাক্ষী রাখিয়াছিলেন। কীনের বিশ্বাস টমাস বেগমের পাণিপ্রার্থী ছিলেন এবং ব্যর্থমনোরথ হইয় তাহার কাৰ্য্য ত্যাগ করেন। লুফাসুলত কিছু উদ্ধত প্ৰকৃতির লোক ছিলেন ; কিন্তু নিরক্ষর ছিলেন না । বেগমের অপর সেনানায়কগণ মুখ ও বর্বর ছিলেন। লুভাসুলত আদেশ করিলেন, তাহারা আর তঁহার ও বেগমের সঙ্গে পূর্ববৎ একত্ৰ আহার করিতে পাইবেন না । ইহাতে তঁহারা অত্যন্ত অপমান বোধ করিলেন। তাহারা বেগমের বিবাহের কথা অবগত ছিলেন না। সুতরাং, নূতন সেনাপতিকে বেগমের প্রণয়প্ৰাথামাত্ৰ ভাবিয়া তঁহার এই ব্যবহারে অত্যন্ত বিরক্ত হইলেন। সুযোগ বুঝিয়া বেগমের সপত্নীপুত্র তাহাদিগকে আরও উত্তেজিত করিতে লাগিলেন। এই যুবক কিছুদিন হইতে দিল্লীতে বাস করিতেছিলেন । তিনি ভারতীয় রীতিনীতি গ্ৰহণ করিয়াছিলেন ও নবাব জাফর ইয়াব খ্যা মজফফর উদ্দীন নামে পরিচিত ছিলেন। এই কাৰ্য্যে লেজোয়া নামক একজন কৰ্ম্মচারী র্তাহার দক্ষিণহস্ত স্বরূপ হইয়া উঠেন। এদিকে বেগমের ভূতপূর্ব সেনাপতি টমাস স্বতন্ত্র সেনাদল সংগঠিত করিয়া মেবাতিগণের নিকট এক বৎসরের রাজস্ব প্রদানের অঙ্গীকার করাইয়া লইলেন এবং তিজারা ও ঝাঝার নামক দুইটি স্থান অধিকার করিলেন। তিনি বাহাদুরগড় আক্রমণে অগ্রসর হইলে সংবাদ পাইলেন, লুভাসুলত, বেগমের সৈন্যদলসহ তাহাকে আক্রমণের চেষ্টা করিতেছেন। মুষ্টিমেয় অৰ্দ্ধশিক্ষিত সৈন্য লইয়া সুশিক্ষিত বহুসেনার সহিত সংগ্রাম বিপজ্জনক বুঝিয়া টমাস তিজারায় প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করিলেন। লুভাসুলত মেবাতিগণের নিকট যথাসাধ্য অর্থ আদায় করিয়া ঝাঝার আক্রমণ করিলেন। এই সময় তিনি সংবাদ পাইলেন, সাৰ্দ্ধনায় বিদ্রোহ অবশ্যম্ভাৰী ও আসন্ন। এই সংবাদ পাইয়া তিনি পঞ্জীর রক্ষার্থ সাৰ্দ্ধনায় প্রত্যাবৃত্ত হইলেন। 8