পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/২০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


verf iş, Yoyq 1 মৃত্যু-মিলন Šb”ዓ দিন দিন ভাবিতে লাগিলেন, পতি • শৌৰ্য্যবীৰ্য্যহীন-জড়বৎ জীবন যাপন করিতেছেন। তঁহার প্ৰেম প্ৰথমপ্ৰবাহপথে হতাশার শিলা প্ৰাচীরে প্রতিহত হইয়া প্ৰত্যাবৃত্ত হইল। তাহার পর তিনি শুনিতে লাগিলেন, অন্তঃপুরে কেহ কেহ বলাবলি করিতে লাগিল-যুবরাজ পত্নীর জঙ্গ রাজকাৰ্য বিসর্জন করিয়াছেন। কি লজ্জা ! কি আক্ষেপ । তিনি কি চাহিয়া কি পাইলেন। তাহার প্ৰতিহত প্ৰেম তাহার হৃদয়েই রুদ্ধ রহিয়া হৃদয়কে পীড়িত করিতে লাগিল । তাহার পর এরূপ অবস্থায় যাহা হয়, তাহাই হইল ; উভয়ের মধ্যে ব্যবধান বাড়িতে লাগিল। প্রেমের প্রভাত-কিরণে জীবন সমুজ্জ্বল হইতে না হইতে হৃদয়ে ਸੈਰ গাঢ় ছায়া পড়িল। প্রেমের প্রবাহে যদি ঔদাসীন্যের বাধা পড়ে তবে তাহা ক্রমেই বাড়িয়া চলে। সুবরাজ রাজ্যলাভ করিলেন। কিন্তু রাজ্যের দিকে তঁহার দৃষ্টি নাই। রাণী বুঝিতে পারিলেন না,-প্রেমের প্রথম উচ্ছাস অপগত হইলে তিনিই শক্তিসঞ্চার কারিয়া রাজাকে কৰ্ত্তব্য-সাধনে সমুৎসুক করিতে পারিতেন। তিনি বুঝিতে পরিলেন না,-আির্তাহারই ব্যবহারে রাজার আর কোন বিষয়ে উৎসাহ নাই,তাইতিনি রাজকাৰ্য্যেও মনোযোগ দান করেন না । এই ভাবে এত দিন কাটিতেছিল। এখন রাজার ভাবান্তর দেখিয়া রাণীর হৃদয়ে সেই সঞ্চিত প্ৰেমরাশি উচ্ছসিত হইয়া উঠিল। তিনি আপনাকে ধিক্কার দিলেন ;-হায়, তিনি কি অন্ধ । যাহার এত গুণ, তঁহার গুণবিষয়ে তিনি অন্ধ হইয়াছিলেন ! যিনি সৰ্ব্বতোভাবে রাজগুণে বরেণ্য, তিনি তঁহাকে অসার মনে করিয়াছেন । রাণী কঁাদিতে লাগিলেন। হায়, তিনি কি ভ্ৰান্তিবশে কি অমূল্য রত্ন ইয়াছেন । * বহুক্ষণ কঁাদিয়া মনের ভার লঘু হইলে রাণী উঠিলেন। তখন চন্দ্ৰ পশ্চিম দিকচক্ৰবাল স্পর্শ করিতেছে-দিবালোক ফুট ফুটে । সেই স্নিগ্ধ,মধুৰ আলোকেসেই দিবা ও নিশার সন্ধিস্থলে উমার মনে হইল, যেন রাণীর রূপরাশি কোমলতায় স্নিগ্ধ হইয়াছো-ৰ্তাহীকে শিশিরঙ্গাত কুসুমের মত দেখাইতেছে। রাণী মুখ তুলিয়া উমাকে দেখিলেন ; উচ্ছসিত কণ্ঠে বলিলেন, “উমা, আমি কি ভ্ৰান্ত ” রাণীর হৃদয়ে প্ৰবল বাসনা জন্মিল, রাজার কাছে সকল কথা বলিবেন । তিনি উদ্যান ত্যাগ করিয়া প্ৰাসাদে রাজার শয়নগৃহে প্ৰবেশ করিলেন। রাজা সে গৃহে নাই !