পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৩৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্ৰীরামপুরের যুরোপীয়গণ ধৰ্ম্মপুস্তক প্রকাশ করিয়া, দেশীয় লোকেরষ্টমাচার- ; ব্যবহারের প্রতি বিন্দ্রপবর্ষণ করিয়া লোকের মন হইতে পুরাতনের প্রতি অনুরাগ দূর করিয়া দিতে লাগিলেন। বাঙ্গালা ভাষায় পুস্তক প্ৰকাশিত করিয়া সমাজের নিম্নস্তর। পৰ্যন্ত ইহঁরা জ্ঞানের আলোক লইয়া গিয়াছিলেন। বঙ্গভাষায় পুস্তকপ্রণয়ণ করায় খৃষ্টধৰ্ম্মের কিছু উপকার হউক না হউক, বঙ্গভাষার যে প্রভূত উপকার হইয়াছিল তাহা মুক্তকণ্ঠে স্বীকার করিতে হয়। মিশনারীরা যে কেবল ধৰ্ম্মপ্রচার করিয়া শিক্ষাবিস্তারের সুবিধা করিয়া দিয়াছিলেন তাহা নহে। সময়ে সময়ে মিশনারীদের ভবনে যুবকগণের সান্ধ্য সমিতিও বসিত। নিষিদ্ধ খাদ্বেন্ত তঁহাদের রুচি ও সম্ভবতঃ এই স্থানেই অর্জিত হইত। শিক্ষাবিস্তারের আর একটি দ্বারস্বরূপ হইল সংবাদপত্র। বিলাতের এবং এই দেশের কোন কোন যুরোপীয় সংবাদপত্র-পরিচালন করিয়া শিক্ষাবিস্তারের বিশেষ সুবিধা করিলেন। পরিশেষে ১৮৩৫ খৃষ্টাব্দে যখন মুদ্রাযন্ত্রের স্বাধীনতা প্রদত্ত ভইল, তখন স্বাধীনচিন্তার প্রকৃত উদ্বোধন হইল। সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এই নবযুগের একটি বিশেষ স্মরণীয় ঘটনা। ( कभभ: ) टी४८१ड़नांथ भिद्ध। ॐकाळी । জলদ সঞ্চিত বহি ফেলে উগারিয়া, বিদ্যুল্লতা লভে পরকাশ; মানব গৃহীত সত্য দেয় বিলাইয়া হয় তাহে জ্ঞানের বিকাশ । শ্ৰীযৰ্তীন্দ্ৰনাথ চট্টোপাধ্যায়। −0 -