পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৪১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহোৎসব উপলক্ষে ভক্তবৃন্দ কয়েকদিন ধরিয়া মৃদঙ্গাদিযন্ত্রসহযোগে মহােৎসাহে । বলরামের নাম সংকীৰ্ত্তন করিয়া থাকে। এই উপলক্ষে আখড়ায় তিনদিন “মচ্ছবি” । হইয়া থাকে, প্রথম দিন অল্প মচ্ছবি, দ্বিতীয়দিন চিড়ে মচ্ছবি, শেষদিন লুছি মাছবে ময়ূরেন সমাপয়েৎ হয়। এই আখড়ায় বহুকালের পুরাতন আমানি সঞ্চিত আছে, এই আমানি বলরামের প্রসাদ বলিয়া খ্যাত ; নিম্ন শ্রেণীর অনেক লোক, দুশ্চিকিৎস্য রোগে আক্রান্ত হইয়া এই আমানি পানে নিরাময় হইয়াছে, এইরূপ শুনিতে পাওয়া যায়। * বাদলা ভাষায় প্রবচন আছে, “গেয়ে জুগী ভিক্‌ পায় না।”—স্থানীয় ভদ্রলোকের মধ্যে বলরামের প্রতিপত্তি নাই ; তথাপি ভদ্রমহিলাসমাজ বলরামচন্দ্ৰকে যথেষ্ট শ্রদ্ধা করেন ; মৃত্যুবৎসা প্ৰস্তুতিগণ বলরামের “মানত” করিয়া থাকেন। "অনেকেই বলরামের নামানুসারে স্ব স্ব পুত্রের নামকরণ করিয়া থাকেন। বলরামের মানত করিয়া যাহারা সন্তান লাভ করেন, সন্তানের অন্নপ্রাশন উপলক্ষে তাহারা পাচ সিকা বলরামের ভোগের জন্য আখড়ায় পাঠাইয়া দেন, : অন্নপ্রাশনের সময় আখড়ার মৃত্তিকা শিশুর মুখে দেওয়া হয়। বলরামের শিষ্যগণ দরবেশ নামে খ্যাত, এই সকল শিষ্যের মধ্যে উদাসীন ও গৃহী এই উভয় শ্রেণীর লোকই বর্তমান, আশ্রমে হীন জাতীয় অনেক বর্ষীয়সী। স্ত্রীলোকও দেখা যায় ; ভিক্ষাই তাহদের উপজীবিকা, এই সম্প্রদায়ে পরিচ্ছদগত কোন বিশেষত্ব নাই, তবে বলরামি দরবেশগণ মন্তকে দীর্ঘকেশ ও দাড়ী গোপ :রাখে, ভিক্ষা করে ; এবং গৃহস্থের দ্বারে উপস্থিত হইয়া ‘জয় বলরামচন্দ্ৰ” বলিয়া ভিক্ষণ প্রার্থনা করিয়া থাকে। বলরাম চিরকুমার ছিলেন, কিন্তু তাহার একটি সেবাদাসী ছিল। এই সেবা দাসীর নাম ব্ৰহ্ম মালোনী। বলরামের মৃত্যুর পর সে আশ্রমের কর্তৃত্বভার গ্ৰহণ করিয়াছিল। নীচ জাতীয়া স্ত্রীলোক হইলেও, তাহার মুখে অনেক জ্ঞানগর্ভ কথা শুনিতে পাওয়া যাইত ; বোধ হয়, দীর্ঘকাল বলরামের সহবাসে তাহার প্রজ্ঞানেত্ৰ প্ৰস্ফুটিত হইয়াছিল। অনেকদিন পুর্বে ব্ৰহ্ম মালোনীর মৃত্যু হইয়াছে; এখন জীবন দরবেশ নামক এক ব্যক্তি বলরামের আশ্রমের পরিচালক। কিন্তু এখন এই সম্প্রদায়ের প্রকৃত পরিচালক কেহ আছে বলিয়া বোধ হয় না। •ৰলরামি সম্প্রদায়ের মধ্যেও মতভেদ প্ৰবেশ করিয়াছে ; কতকগুলি ভক্ত * আখড়ার সংস্রব ত্যাগ করিয়া আখড়ায় প্রায় এক মাইল দক্ষিণে নদীর পশ্চিম পারে কুটীর নির্মাণ করিয়া বাস করিতেছে। এই নূতন আশ্রমটি বলরামের সমাধি