পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৬২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তিনি স্বয়ং ইহার দুৰ্বল প্ৰাৱস্ত লক্ষ্যও করিতে পারেন নাই। এখন তিনি অহা বাক্ষ্য করিয়া চিন্তিত-শাঙ্কিত। হায় কৰ্ত্তব্য, তুমি কত সময় মানুষকে তাহার নিয়তি-নির্দিষ্ট-অপ্ৰত্যাশিত পথের পথিক করা! হায় দয়া, তুমিও কত সময় মানুষকে অজানিত অকুলে আনিয়া বিপন্ন কর। তিনি কৰ্ত্তব্য-বুদ্ধির প্রণোদনে পুরোহিতের গৃহে শোকাতুর বালিকাকে দেখিতে গিয়াছিলেন। দয়ার প্রণোদনে অসহায়ার জন্য ব্যস্ত হইয়াছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয় দিন সেই ংযমের প্রতিমাকে দেখিয়া তঁহার মনে হইয়াছিল, যেমন কোরক একবারমাত্র বিকশিত হয় ও বিকশিত কুসুম একবার মাত্র। —মুহূৰ্ত্ত-মাত্রের জন্য। সম্পূর্ণ সৌন্দৰ্য্যের পূর্ণতা লাভ করে, তেমনই মানুষও বুঝি একবার-মুহুর্কের জন্য মানসিক সৌন্দর্ঘ্যের সমুজ্জ্বল আভায় দিব্য লাবণ্য লাভ করে। সে মানসিক সৌন্দৰ্য্য কাহারও পক্ষে প্রেমপ্রস্থত, কাহারও পক্ষে সংযমসদ্ভুত, কাহারও। পক্ষে স্নেহসঞ্জাত। বুঝি সেইরূপ সৌন্দৰ্য্যসম্পূর্ণ অবস্থায় তিনি বালিকাকে । দেখিয়াছিলেন। তাই তাহার সেই সংযমস্নিগ্ধ-কোমল মূৰ্ত্তি তিনি আর ভুলিতে পারেন নাই। তাহার পর তিনি অহাকে যতই জানিয়াছেন, ততই তাহার গুণে মুগ্ধ হইয়াছেন। তিনি শোকাতুরার শোকপ্ৰশমনকল্পে কিছু করিতে চাহিলে সে সম্পূর্ণ নিঃস্বর্থতার পরিচয় দিয়াছে। সে আপনার কথা মনেও করে নাই ; আপনার জন্য কিছুই চাহে নাই। সে রাজ্যের রুগ্ন, অনাথ, নিরাশ্রয়-ইহাদিগের জন্য আশ্রমসংস্থাপনের ইচ্ছামাত্ৰ জানাইয়াছো-রাজাকে তঁহার অবশ্য কৰ্ত্তব্য কৰ্ম্মের বিষয় স্মরণ করাইয়া দিয়াছে। সে পিতার আদেশ । দেববাক্যাবৎ জ্ঞান করে, তাই ভ্ৰাতৃশোকশেল হৃদয়ে লইয়াও পিতার অনুমতি । ব্যতীত শূন্য গৃহ অ্যাগ করিতে অস্বীকৃত হইয়াছিল। সর্বোপরি অ্যাহার : সংযমের সৌন্দৰ্য্য ! তেমন সংযম – তেমন চিত্তবৃত্তিদক্ষনক্ষমতা পুরুষের - কোথায় ? তাই রাজা আহার গুণপরিচয়ে মুগ্ধ হইয়াছেন। কিন্তু—তাহাই কি সব ? বিরামবাট্যকারী নিৰ্ম্মাণকাৰ্য্যে তঁহার অসাধারণ? আকর্ষণ সে কি কেবল অহার অসম্পূর্ণ কল্পনার সম্পূর্ণকরণাভিলাষের ফল : সে কি সেই পুৰ্ব্বমোহ আবার তঁহাকে মুগ্ধ করিয়াছে ? হৃদয়ের নিহত নিকুঞ্জে-বহু আপাতরম্য কারণের অন্তরালে কি আর কোন কারণ বিদ্যমান নাই ? অন্তঃসলিলা ফন্তুর অদৃশ্য প্রবাহের মত আর কোন বাসনাঙ্ক: উত্তেজনা কি তঁহির হৃদয়ে প্রবাহিত হইতেছিল না ? : , ,