পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৭৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


i. ■ . . . . . . a ," " " ..." . . . . . : . י. * b и и Н . " . . ه- * ".: "" "" '- al . . . . حسن * * * * * * * ... : . ' '*' : , , . নায় অস্থির হইয়া ভূষিত চাতকের ন্যায় সুনীল গগনে অনিমেষ নয়নে দৃষ্টি । নিক্ষেপ করিত না। তখন প্রকৃতই ভূমি সুফল ছিল ;-মাটির উর্বরতা শক্তি তখনও প্রায় সম্পূর্ণ বৰ্ত্তমান, সামান্যরূপে ভূমি কর্ষণ করিয়া বীজ বপন । করিলেই ষোল আনা ফসলে মাঠ ভরিয়া যাইত,-ক্ষেত্রে এখনকার মত অধিক । পরিমাণে সার প্রয়োগ করিতে হইত না। আর ভূমি সুজলা, সুফলা বলিয়া । শস্য-শ্যামলা হইয়া কৃষকের মনে সুখের হাট বসাইয়। অন্নপূর্ণরূপে বিরাজ । করিত। তখন বাস্তবিকই “মাঠে মাঠে ধান ধরে নাক আর’-ক্ষেত্রের } এইরূপ ভাব ছিল। তখন জন্মভূমি স্বীয় ঐশ্বৰ্য্যভারে উৎফুল্লা হইয়া সম্বকীতবক্ষে । বিরাজ করিতেন। এক কথায় সেকালে জমীতে এরূপ তেজ ছিল, জমীর উর্বরতা শক্তি এত অধিক ছিল যে, সামান্যমাত্র পরিশ্রমে জমী একটু আঁচড়াইয়া , কর্ষণ করিয়াও নহে ) বীজ ছড়াইয়া দিলেই প্রচুর শস্য উৎপন্ন । হইত। তাহার উপর অধিকাংশ জমীই ভালরূপে জলসম্পোষ্য ছিল,- “শুকো’ হইলেও শস্যের অনিষ্ট হইত না। সুতরাং মাথার ঘাম পায়ে না । ফেলিয়াও কৃষকরা অক্লেশে অন্নের সংস্থান করিতে পারিত, অনায়াসে পরিা : বার প্রতিপালন করিত। তখন তাহাদের গোলােভরা ধান, গোয়াল ভর | গরু, গালভরা হাসি। তৎকালে কৃষিজাত দ্রব্য এইরূপ অনায়াসলন্ধ ছিল বলিয়া, প্রাচীন মনীষিগণ কৃষিকাৰ্য্যের উন্নতিকল্পে সচেষ্ট ছিলেন না, তাই তঁাহারা এই বিষয়ে । উপদেশাদি প্ৰদান করিয়া যায়েন নাই এবং সেই জন্যই আমাদের কৃষিবিজ্ঞান | DBDBBBBDDB KDDB DDD GGBBD KSLDY D K এখন দেখা যাউক, আমাদের কৃষিকাৰ্য্যের এইরূপ অধঃপতনের কারণ " কি। কৃষিকাৰ্য্যের এইরূপ অবনতির কতিপয় প্রধান কারণ আমরা নিয়ে । লিপিবদ্ধ করিতেছি। ” ১। প্রাকৃতিক পরিবর্তন। পূর্বে আমাদের দেশে যে পরিমাণে বৃষ্টি হইত।" এখন আর সেরূপ হয় না ; বৃষ্টির পরিমাণ এখন অনেকাংশে কমিয়া भिग्राह। সুতরাং এখন কেবল বৃষ্টির উপর নির্ভর করিয়া কৃষিকাৰ্য চলিতে পারে না। ’ ২" জমীর উর্বরতা শক্তির হ্রাস। জমীর উর্বরতাশক্তি ক্ৰমাগত কমিীয়া । গিয়া, এখন জমী প্রায় নিস্তেজ হইয়া পড়িয়াছে। একই জমীতে ক্ৰমাগত ' ফসল উৎপাদনা করিলে, সেই জমীর উর্বরতাশক্তি কমিয়া बाश्, 4 কথা সকল ।