পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৭৭৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


খািঞ্জযুক্ত হইলে শ্রুতিমাত্রই তাহার অর্থ বােধ হয়, তাহাকে বৈয়াকরণগণ।। *প্রয়োগ বলেন। বৈয়াকরণগণ সেইরূপ প্রচলিত শুদ্ধ প্রয়োগগুলিকেই লিপিবদ্ধ করেন ও তাঁহাই ব্যাকরণ বলিয়া বিখ্যাত হয়। এই ব্যাকরণধ্ৰুপ্ৰায়ণে যতই বিলম্ব হইবে ততই আরও ব্যতিক্রম আসিয়া জুটিবে। কিন্তু ফ্লার বৈয়াকরণিক নিয়মাবলী লিপিবদ্ধ হইলে, আর তাহা লঙ্ঘন করা *ইহুরূহ হইয়া পড়ে। আমার বােধ হয়, বাঙ্গালার ব্যাকরণ স্বত্রে যে *কন্তু ব্যতিক্রম দৃষ্ট হয় শুধু ব্যাকরণ-প্রণয়ণে বিলম্বই তোহার একমাত্র কারণ। যত অধিক বিলম্ব হইবে ততই সূত্র ও ব্যক্তিক্রমভার অধিক

  • আবার কেহ কেহ বলেন যে, ব্যাকরণ দিয়া বন্ধ দিলে ভাষার স্বাধীনতা বন্ধ হয় ; অতএব ব্যাকরণ হওয়া উচিত নািহ। এ যুক্তিও তথ্যসূর্ণ অসার। আমরা মনে করি, উচ্ছঙ্খলতাই স্বাধীনতা। তাহা নহে। সকল দেশই ব্যাকরণ মানিয়া চলিতেছে, তবে কি সকল দেশেই ভাষার অবাধ প্রবাহ রুদ্ধ ? ভাষার স্বেচ্ছাচার ও উচ্ছঙ্খলতা নিবারণ করিতেই অ্যাকরণ। মানুষকে সংযত করিতে এতাবৎ অনেক ধৰ্ম্মশাস্ত্ৰ, নীতিশাস্ত্ৰ, ব্যবহারশান্ত্র, শাসনশাস্ত্ৰ প্ৰস্তুত হইয়াছে কিন্তু সকল মানুষই কি সংযত ও নিয়মিত হইয়াছে ? অনেকে হইয়াছে ও অনেকে হয় নাই; যাহারা হয় নাই অহারাও হইবে ; তবে কিছু পরে। কিন্তু তাহা বলিয়া কি বলিতে হইবে যে, ধৰ্ম্মশাস্ত্রাদির কোন প্রয়োজন নাই ? যদি তাহা না থাকে তবে ব্যাকরণেরও নাই।

শিশুকে প্রথম চলিতে শিক্ষা দিবার সময় যেমন তাহাকে হাত । ब्रि ঢালাইতে হয় তাহাতে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিলে তাহার পতন অবগুম্ভাবী ; ! সেইরূপ শিশু বঙ্গভাষাকে এক্সন সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া কোন মতেই উচিত শাহো এতদিনুরজভাষা সংস্কৃতের নিকটে থাকিয়া সংস্কৃত ভাবেই অনুপ্ৰাণিত #šturur . ! সংস্কৃত ব্যাকরণের আদর্শে আমাদের ব্যাকরণ রচিত

মহামহােপাধ্যায় পণ্ডিত শ্ৰীছুক্ত হরপ্রসাদ শাস্ত্রী মহাশয়ের ইচ্ছা, বাদাল

eeeSYJSSAS SSeeSkSeSeSS0eeSSSSeeSSSSSSS S S SH S S KS SZSJS