পাতা:আশুতোষ স্মৃতিকথা -দীনেশচন্দ্র সেন.pdf/১৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


TSVS Na ersfø fr revis NT 557 ଏifive} 可f5 করিয়াছিলেন । गाभूष्ट V NUJU এই উভয় সাহিত্যের প্রতি অনুরাগ श्वानों५fाब-ब'दशब्र ७छे भाशाह दी ছিল। এই জন্যই আমরা বলিয়াছি বাঙ্গলা ভাষার প্রতি অনুরাগের বীজ ལ་ག་ রক্তের মধ্যেই हिन । छिनि विषयात्रै ऐeछविकाग्न qक वन अथवूड श्ा७ ऊँहान মাতৃভাষাকে উপেক্ষা করেন নাই, বরঞ্চ যে প্রাসাদের প্রবেশ-পথে জ্ঞানের অন্যান্য শাখায় মহারাধীদের রািখ সগৌরবে যাতায়াত করিতেছে, সেই সদর দরজা দিয়া তিনি বাঙ্গলা ভাষার শকট বল-পূর্বক চালাইয় ছিলেন ! বলা বাহুল্য, এ কাৰ্য তিনি ভিন্ন অন্য কাহারও সাধ্যায়ত্ত ছিল না,-তহারই বিশাল ও বলদৃপ্ত বাহু এই কাৰ্য্যের সম্পূর্ণরূপে যোগ্য ছিল। অপর দিকে বিদ্যাসাগর যে পরিবারে জন্মিয়ছিলেন, তাহা মেদিনীপুরের গোড়া টুলো ব্ৰাহ্মণ-পণ্ডিতের বংশ। সেখানে ব্রাহ্মণ-পণ্ডিতের পক্ষে তখন বাঙ্গলা ভাষার চর্চা শুধু অশোভন ছিল না, তাহা নিন্দার বিষয় বলিয়া গণ্য হইত। বিদ্যাসাগর মহাশয় সংস্কৃতের কর্তী পণ্ডিত এবং শেষে সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ ਨਸ | ਰਿਸਿ বাজলাভাষা চর্চায় মনোনিবেশ করিলেন, কোন দ্বিধা বা दूद्र नश नाश,-शैश গৌররব-জনক মনে করিয়া। বিদ্যাসাগর ব্ৰাহ্মণ্য-প্রভাবের মধ্যে গড়, তাহার তেজ ব্ৰাহ্মণোচিত, তঁহার বেশ-ভূষা, আত্মসম্মান-জ্ঞান, সংসারের ঐশ্বৰ্য্যের প্রতি উপেক্ষা, নিজের সঞ্চয় একেবারে নিঃশেষ করিয়া দান করা প্রভৃতি মহাদগুণ সেই ব্ৰাহ্মণ্য @छांतश्रे জয় ঘোষণা করে। কিন্তু এই প্ৰাচীন বংশের একজন গোড়া এবং একশাখার লোক হইয়াও অন্ধ গে ড্রামী তাহার চরিত্রের উপর প্রভাব বিস্তার করে নাই। চাট পায়ে টুলো ব্ৰাহ্মণ, মাথার পিছনে শিখা নড়িতেছে—তাহার পুরোভাগটা কামানো-ইনি বিধবাবিবাহের শাস্ত্র প্রচার করিতেছেন। চিরকাল কীটদষ্ট তালপাতা বা のマ**マー পুথির ভুরি খুলিয়া শাস্ত্ৰ পাঠ করিয়াছেন, অথচ তাহার লাইব্রেরী দেখিলে মনে হইত। কোন রাজাধিরাজের গ্রন্থশালা। ধারাপাত হইতে সেক্ষপীয়রের কাব্য ও কালি"? শকুন্তলা—সকলেরই বাধাইটি পরিপাটী, নামগুলি পুস্তকের পৃষ্ঠায় সোনার জলে ঝলমল করিতেছে। তাহার বুকে উপবীত বুলিতেছে, অৰ্দ্ধমান থান-ধুতি-পরা, মাথার অর্দেশ কামানে, বাকি অর্থের একপাশে গেরো-দেওয়া টিকি, উপানহ ধূলি-ধূসর, কীর্ণ সেইরূপ চাদর ঝুলিতেছে- অথচ রাজপুরুষদের সঙ্গে কথা কহিবার সময় নিভীক ও fቑጻ]- শূন্য ইংরাজী ভাষার তুবড়ি ছুটিতেছে,-ইহা এক অপূৰ্ব্ব দৃশ্য ! “আধশিরে ਬ੍ਰ, আধশিরে শোভে বেশী।” এইরূপ অদ্ভুত উপাদানের মিশ্রণে তঁহায় চরিত্র আমাদের চক্ষে অপূৰ্ব্ব হইয়াছে। এত বড় সংস্কৃতের পণ্ডিত অথচ নিবিষ্টচিত্তে, চেয়ারে বসিয়া বাক্ষলাভাষার সেবা করিতেছেন। ব্ৰাহ্মণের মতই সূক্ষ্ম দৃষ্টিসহকারে সত্য উপলব্ধি