প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:কণিকা (১৮৯৯) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৪

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।


নিন্দুকের দুরাশা

মালা গাঁথিবার কালে ফুলের বোঁটায়
ছুঁচ নিয়ে মালাকর দু বেলা ফোটায়।
ছুঁচ বলে মনদুঃখে, ‘ওরে জুঁইদিদি,
হাজার হাজার ফুল প্রতিদিন বিঁধি
কত গন্ধ কোমলতা যাই ফুঁড়ে ফুঁড়ে,
কিছু তার নাহি পাই এত মাথা খুঁড়ে।
বিধি-পায়ে মাগি বর জুড়ি কর দুটি
ছুঁচ হয়ে না ফোটাই, ফুল হয়ে ফুটি!’
জুঁই কহে নিশ্বসিয়া, ‘আহা হোক তাই—
তোমারো পুরুক বাঞ্ছা, আমি রক্ষা পাই।’

১২