পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 করিম সেখ বেী । পরের হাততোলা খাওয়ার চেয়ে ভিক্ষা কি ভাল নয় ? বুড়ী। না মা, সে কি হয় ? আর আজকালকার দিনে কে কারে ভিক্ষা দেয়, আর তাতেই কি চলে ? বীে তখন বলিল “দেখ মা, আমার কথা শোন। তুমি করিমের কাছে থেকে কিছু নিতে পারবে না। তার দেওয়া ভাত আমি খাব না, তোমাকেও খেতে দেব না । আমি দুয়ারে দুয়ারে ভিক্ষে ক’রে যা পাবো তাই খাবো ; ভিক্ষে না জোটে না খেয়ে ঘরে প’ড়ে মরব, তবুও করিমের দেওয়া ভাত খাব না।” বীেয়ের কথা শুনিয়া বৃদ্ধ কিছুক্ষণ বৌয়ের মুখের দিকে চাহিয়া রহিল, তাহার বলিল “বীে, তুমি ছেলেমানুষ, কিছুই বুঝতে পারিছ না। রাত পোহলেই যে আধ সেরা চা’লের দরকার হয়। তারপর আর মাস দুই গেলেই আর একটি জীব আসবে ; তখন কি হবে মা ? একটা হিল্পে ত চাই। আর করিম আমার ছেলের মত ; আমরা দুটা ভাতের জন্য ভিক্ষা করব, তা কি সে দেখতে পারে ? তাই সে বলছিল যে, যেমন ক’রে। হ’কি আমাদের দুটাে দানাপানির যে ক’রে দেবে। এখনকার দিনে কে কাকে এমন কথা বলে মা ?” বীে বলিল “তুমি যা-ই বল না কেন, করিমের কাছে থেকে কিছু নিতে পারবে না-কিছুতেই না। তাতে জান যায়। ভাল। তারপর দুমাস পরের কথা বোলছো, তা দুমাস ত যাক, তখন যা অদেষ্টে থাকে। তাই হবে।” বুড়ী বলিল “মা, তোমার কথা বুঝেছি। তুমি হয় ত তোমার বাপমায়ের কথা ভেবে সাহস কোরছ; দুদিন পরে তুমি তোমার বাপমায়ের কাছে চলে যাবে ; যেমন করে হোক তারা তোমায় ।