পাতা:কাব্যগ্রন্থ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চৈতালি যখন নিস্তব্ধ গ্রামে তব পূৰ্ববতীরে রুদ্ধ হ’য়ে যায় দ্বার কুটীরে কুটীরে, তুমি কোন গান কর আমি কোন গান দুই তীরে কেহ তা’র পায়নি সন্ধান । নিভৃতে শরতে গ্রীষ্মে শীতে বরষায় শতবার দেখা শোনা তোমায় অামায় । কতদিন ভাবিয়াছি বসি’ তব তীরে পরজন্মে এ ধরায় যদি আসি ফিরে, যদি কোনো দূরতর জন্মভূমি হ’তে তরী বেয়ে ভেসে আসি তব খর স্রোতে,— কত গ্রাম কত মাঠ কত ঝাউঝাড় কত বালুচর কত ভেঙে-পড়া পাড় পার হয়ে এক ঠাই আসিব যখন জেগে উঠিবে না কোনো গভীর চেতন ? জন্মান্তরে শতবার যে নির্জন তীরে গোপনে হৃদয় মোর আসিত বাহিরে,— আর বার সেই তীরে সে সন্ধ্যাবেলায় হবে না কি দেখা শুনা তোমায় আমায় । ২৫শে চৈত্র, ১৩০৩