পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/১৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন পঞ্চক। তর্ক করতে পারিনে বলে রাগ কর, তাবার দেখি পারলেও রগো ! মহাপঞ্চক । যাও তুমি । পঞ্চক । যাচিচ, কিন্তু পল না গুরু কি সত্যই আসবেন । মহাপঞ্চক । তার সময় হ’লেই তিনি অস্বেন। ( প্রস্থান ) সঞ্জীব ! মহাপঞ্চক কোনো কথাব শেষ উত্তর দিয়েচেন এমন কখনই শুনিনি । জয়েন্তিম । কোনো কথার শেষ উত্তর নেই বলেই দেন না । মূৰ্থ যার তরাই প্রশ্ন জিজ্ঞাস করে, যার অল্প জানে তারই জবাব দেয়, তার যার বেশি জানে তা’র জানে যে জব{ল দে ওয়! য{য় ন} । পঞ্চক । সেই জন্যে চ উপাধ্যায় মশায় যখন শাস্ত্র থেকে প্রশ্ন করেন তোমরা জবাব দী ও কিন্তু আমি একেবারে মূক হ’য়ে থাকি । জয়োত্তম । কিন্তু প্রশ্ন না করতেই যে কথাগুলো বল, ত’তেই—— পঞ্চক । হা, ত’তেই আমার খ্যাতি রটে গেছে, নইলে কেউ আমাকে চিনতে পারত না । বিশ্বস্তর। দেখ পঞ্চক, যদি গুরু আসেন তা হ’লে তোমার জন্যে আমাদের সকলকেই লজ্জা পেতে হবে । >Qq