পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/২৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন পঞ্চক । তোদের যা আছে তাই আমরা খাব। দ্বিতীয় দৰ্ভক। আমাদের খাবার ? সে কি হয় ? সে যে সব ছে ওয়া হ’য়ে গেচে । পঞ্চক। সে জন্যে ভাবিসনে ভাই । পেটের ক্ষিদে যে আগুন, সে করে ছোওয়া মানে না, সবই পবিত্র করে । ওরে তোরা সকল বেলায় করিস কি বলত । ষড়ক্ষরি ত দিয়ে একবার ঘট শুদ্ধি করে’ নিবিনে ? তৃতীয় দৰ্ভক । ঠাকুর, আমবা নাচ দর্ভক জাত—আমরা ওসব কিছুই জানিনে ! আজি কত পুরুষ ধরে এখানে বাস করে আসচি কোনো দিন ত তোমাদের পায়ের ধূলে পড়েনি । তাজ তোমাদের মন্ত্র পড়ে’ আমাদেব বাপ পিতামহকে উদ্ধার করে’ দা ও ঠাকুর । পঞ্চক সদবনাশ ! বলিস কি ! এখানে ও মন্ত্র পড়তে হবে । তাহ’লে নিললাসনের দরকার কি ছিল । তা, সকাল বেলা তোরা কি করিস বলত ? প্রথম দৰ্ভক । আমরা শাস্ত্র জানিনে, আমরা নাম গান করি । পঞ্চক । সে কি রকম ব্যাপার ? শোনা দেখি একটা । দ্বিতীয় দৰ্ভক । ঠাকুর, সে তুমি শুনে হাসবে । পঞ্চক । আমিই ত ভাই এত দিন লোক হাসিয়ে আসচি— তোরা আমাকেও হাসাবি—শুনেও মন খুসি হয় । আমি যে কি মূল্যের মানুষ সে তোরা খবর পাস্নি २२४