পাতা:কাব্যগ্রন্থ (ষষ্ঠ খণ্ড).pdf/৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজা ও রাণী দেবদত্ত তা আমি বলতে পারিনে বাপু । এখন ত তোরা কান্না ধরেছিস্—এই একটু আগে আর এক স্থর বের করেছিলি । সে কথাগুলো কি রাজা শোনেনি ? রাজা সব শুনতে পায় । অনেকে দোহাই ঠাকুর, আমরা কিছু বলিনি, ঐ কাঞ্জলাল না মাঞ্জলাল অস্তরের কথা পেড়েছিল । কুঞ্জরলা চুপ কর। আমার নাম খারাপ করিসনে । আমার নাম কুঞ্জরলাল, তা মিছে কথা বলব না—আমি বলছিলুম, “যেমন শাস্তর তেমনি অস্তরও আছে,— রাজা যদি শাস্তরের দোহাই না মানে, তখন অস্তরও আছে।” কেমন বলেছি ঠাকুর ? দেবদত্ত ঠিক বলেচ—তোমার উপযুক্ত কথাই বলেচ । অস্ত্র কি ? না, বল । তা তোমাদের বল কি ? না “দুর্বলস্য বলং রাজা”—কি না, রাজাই দুৰ্ব্বলের বল। আবার “বালানাং রোদনং বলং” রাজার কাছে তোমরা বালক বই নও। অতএব শাস্তর যদি না খাটে ত তোমাদের অস্ত্র আছে কান্না। বড় ミや