পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১১৯

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১১৬
কাহিনী

লজ্জা দেওয়া?

কল্যাণী


অমনি চেয়ে কি
পাস নি কখনাে, তাই বল্‌ দেখি।

ক্ষীরো


মরা পাখিরেও শিকার ক’রে
তবে তাে বিড়াল মুখেতে পােরে।
সহজেই পাই, তবু দিয়ে ফাঁকি
ভাবটাকে যে শান দিয়ে রাখি।
বিনা প্রয়ােজনে খাটাও যাকে
প্রয়ােজন কালে ঠিক সে থাকে।
সত্যি বলছি, মিথ্যে কথায়
তােমার কাছেতে ফল পাওয়া যায়।

কল্যাণী


এবার পাবে না।

ক্ষীরো


আচ্ছা, বেশ তাে,
সেজন্যে আমি নইকো ব্যস্ত।
আজ না হয় তাে কাল তাে হবে-
ততখন মাের সবুর সবে।
গা ছুঁয়ে কিন্তু বলছি তােমার,
খুড়িটার কথা তুলব না আর।
[কল্যাণীর হাসিয়া প্রধান